চলছে পবিত্র শ্রাবণমাস! মনস্কামনা পূর্ণ করতে মেনে চলুন এই নিয়ম গুলি

19
চলছে পবিত্র শ্রাবণমাস! মনস্কামনা পূর্ণ করতে মেনে চলুন এই নিয়ম গুলি

চলছে পবিত্র শ্রাবণমাস। হিন্দু ধর্মে শ্রাবণ মাসকে শিবের মাস বলেও উল্লেখ করা হয়ে থাকে। ভারতে, বিশেষ করে হিন্দুদের মধ্যে এই মাস ভীষণই পবিত্র। শিবভক্তরা এই সময় উপোস করেন। বাঁকে করে জল নিয়ে পুণ্যার্থীরা যান বিভিন্ন শিবতীর্থে, মহাদেবের মাথায় জল ঢালতে। হিন্দুধর্মে সোমবার হল শিবের বার। আবার মঙ্গলবার হল পার্বতীর বার। অনেকে শ্রাবণ মাসের এই দুই বার ব্রত ও উপোস পালন করে থাকেন। শ্রাবণী মঙ্গলবার এই কারণে বহু জায়গায় মঙ্গল গৌরী ব্রত হিসেবেও উল্লিখিত।

কথিত আছে এই মাসে ভগবান শিবের পুজো করলে তাঁর কৃপা লাভ করা যায়। শ্রাবণের ব্রত পালন করলে পছন্দসই জীবনসঙ্গী পেতে পারেন অবিবাহিত মহিলারা। তাছাড়া ভোলানাথের পুজোর মধ্যে দিয়ে সুস্থতা ও সুস্বাস্থ্যও পাওয়া যায় বলে বিশ্বাস। তবে শ্রাবণের ব্রত পালনের সময় বেশকিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিত।

শ্রাবণ ব্রত পালনের জন্য ভোরে উঠে স্নান করে পুজোপাঠ করুন। তবে পুজোয় হলুদ ব্যবহার একদমই করবেন না। বরং বেলপাতা, ধুতরো ফুল, সাদা ফুল, মধু, ফল ,দুধ,ঘি ইত্যাদি সহযোগে শিবের পুজো করুন।

শ্রাবণ ব্রত পালন করলে এই মাসে আমিষ খাবার গ্রহণ এবং মদ্যপান না করাই উচিত। তাতে ভগবান শিব রুষ্ট হতে পারেন। এই সময় মুলো, বেগুন, রসুন, পেঁয়াজ, গোলমরিচ না খাওয়াই ভাল।

যাঁরা উপোস ও ব্রত পালন করছেন তাঁরা কখনোই কালো পোশাক পরবেন না। শাস্ত্রমতে, ব্রত পালনের সময় কালো পোশাক পরলে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

তাছাড়া ব্রত পালন করলে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হওয়া উচিত নয় বলেই মনে করেন কেউ কেউ। ধর্মীয় পুরাণ অনুসারে, ব্রত পালন করলে দিনের বেলা ঘুমনো উচিত হয়। পরিবর্তে সেই সময় ভগবান শিবের ভজন-কীর্তন করুন।