ওষুধ ছাড়া গাঁটের ব্যথা সারানোর জন্য রইল এই সাতটি অব্যর্থ টোটকা-

22
ওষুধ ছাড়া গাঁটের ব্যথা সারানোর জন্য রইল এই সাতটি অব্যর্থ টোটকা-

একটি নির্দিষ্ট বয়স পেরোনোর পরে হাঁটু গাঁটের ব্যথায় কষ্ট পান অনেকেই, বিশেষ করে মহিলারা এই সমস্যায় ভোগেন বেশি। প্রথম দিকে গুরুত্ব না দেওয়ায় যখন বাড়াবাড়ি হয় তখন কড়া কড়া ওষুধ খেতে হয় কিন্তু প্রাথমিক ভাবে শরীর চর্চা ডায়েট এবং প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম শরীরে দিলেই তা হলে এই সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় না কাউকেই। তাই ওষুধ ছাড়া গাঁটের ব্যথায় যারা কষ্ট পাচ্ছেন তাঁদের জন্য রইল এই সাতটি অব্যর্থ টোটকা-

1. লবন জলের সেক- হাঁটুতে বা পায়ের গাঁটে ব্যথা হলেই ম্যাগনেসিয়াম সালফেট সমৃদ্ধ লবন অত্যন্ত উপকারী। ঠান্ডা জলে লবণ গুলে নিয়ে সেই জল হালকা ভাবে গরম করে নিয়ে আধ ঘণ্টা ধরে সেক করতে থাকুন। নিয়মিত করলে ব্যথা থেকে তাড়াতাড়ি উপশম পাওয়া যায়।

2. হলুদ ও আদার মিশন- দু কাপ জ্বরের সঙ্গে হলুদ ও আদা নিয়ে ফুটিয়ে নিন তারপর সেটি হালকা ঠান্ডা হলে তাঁর সঙ্গে এক চামচ মধু মিশিয়ে দিনে দুবার পান করুন এতে গাঁটের ব্যথা খুব সহজেই সেরে যায়।

3. ঠান্ডা গরম জলে সেক করুন- হট ওয়াটার ব্যাগ জ্বর ভরে রাখুন এবং একটি পাত্রে কয়েক টুকরো বরফ নিন এর পর ব্যথা হওয়া জায়গাটিতে একবার গরম জলে সেক করে নিন তার পরে সেখানে পাঁচ মিনিট ধরে বরফ ঘষতে থাকুন এ ভাবে ঠান্ডা ও গরম শেখ করার ফলে গাঁটের ব্যথা থেকে সহজেই মুক্তি মেলে।

4. মেথি খাওয়া- ব্লাড সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে মেথির জল খেয়ে থাকেন অনেকেই তবে যে কোনও ক্ষতের জ্বালা বা যন্ত্রণা কমাতে মেথি অত্যন্ত কার্যকরী। আগের দিন রাতে ঠান্ডা জলে মেথি ভিজিয়ে রাখুন এরপর পরদিন সকালে খালি পেটে মেথি থেকে ফেলে দিয়ে সেই জল পান করুন এ ভাবে এক মাস পান করলেই ফল পাবেন হাতেনাতে।

5. লঙ্কা গুঁড়ো ও নারকেল তেলের মিশ্রণ- লাল লঙ্কায় থাকা ক্যাপসাইসিন উপাদান গাঁটের ব্যথা কমাতে মোক্ষম দাওয়াই তাঁর সঙ্গে নারকেল তেল হলে মন্দ হয় না তাই প্রতিদিন ব্যথার জায়গাটি হালকা গরম জলে ধুয়ে তাতে নারকেল তেলের সঙ্গে লঙ্কা গুঁড়োর মিশ্রণ বানিয়ে মালিশ করুন।

6. গাজর ও লেবুর মিশ্রণ- দুটি মাঝারি মাপের গাজর কেটে তা বেটে নিন এবং সেই রসের সঙ্গে দুই ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে তা পান করুন। নিয়মিত এই মিশ্রণটি পান করলেই গাঁটের ব্যথা সহ যে কোনও ব্যথা সহজেই দূর হয়ে যায়।

7. পিপারমেন্ট আর ইউক্যালিপটাস তেল- ইউক্যালিপটাস তেলের সঙ্গে পাঁচ থেকে ছয় ফোঁটা পিপারমেন্ট এবং নারকেল অলিভ বা আমন্ড অয়েল মিশিয়ে ব্যথার জায়গায় অন্তত দিনে দুই থেকে তিন বার মালিশ করুন।