খুব শীঘ্রই রাজ্যে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির প্রভাব পরতে চলেছেঃ সূত্র আবহাওয়া দপ্তর

11
খুব শীঘ্রই রাজ্যে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির প্রভাব পরতে চলেছেঃ সূত্র আবহাওয়া দপ্তর

আজ ফের সকাল থেকে কলকাতার আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। আর তার ফলেই সেই অস্বস্তিকর গরম ও আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি শহর জুড়ে। তবে এবার আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে এখন ফের কলকাতা সহ দক্ষিনবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় ফের গভীর নিম্নচাপের প্রভাব পরতে চলেছে। আসল কথা হল এবার ফের বঙ্গোপসাগরে তৈরী হতে চলেছে গভীর নিম্নচাপ। এদিকে শুধু দক্ষিণবঙ্গেই নয়, কারণ উত্তরবঙ্গেও হতে চলেছে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি, যার প্রভাব আগামী রবিবার পর্যন্ত থাকবে। দক্ষিণ বঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সাথে বজ্রবিদ্যুত, বিশেষ করে উপকূলের জেলাগুলোতে এই প্রভাব সবথেকে বেশী পরবে। তাছাড়া এখন মৌসুমী বায়ুর অবস্থান পরিবর্তনের কারণেও এমনটা হচ্ছে বলেই জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। এখনের মধ্যে রাজ্যে বৃদ্ধি পাচ্ছে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি।কারণ রাজ্যে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প ঢুকছে।

আজ কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রীর ঘরে ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রীর ঘরে। তবে এদিকে বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ অনেকটাই বেশী, তাই তো এমন শহর জুড়ে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি ও ভ্যাপসা গরম, সর্বোচ্চ আপেক্ষিক আর্দ্রতা ৯৫% র ঘরে। গত কয়েকদিন থেকে তাপমাত্রা এমনভাবেই ওঠে নামা করে যাচ্ছে। তবে এবার বৃষ্টির ফলে তাপমাত্রা কমলেও যে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি ঠিক বজায় থাকবে সেটাই কিন্তু স্পষ্ট।

তাছাড়া দেখা যাচ্ছে এখন মৌসুমী অক্ষরেখা অবস্থান করছে হিমালয়ের পাদদেশে। আর সেই কারণে উত্তরবঙ্গ সহ উত্তর পূর্ব ভারতে একটা ভারী প্রভাব পরতে চলেছে। উত্তরবঙ্গের ৫ জেলায় কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, দার্জিলিং, কালিংপং সব জায়গায়। আগামী রবিবার পর্যন্ত এই বৃষ্টি চলবে, তবে দক্ষিণ বঙ্গে এখন হালকা মাঝারী বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি চলতে থাকবে। এদিকে ফের বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরী হতে চলেছে আর সেই কারণেই এখন আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে সতর্ক বার্তা জারি করা হয়েছে। দক্ষিণ বঙ্গে তো প্রভাব পরবেই, সাথে উত্তরবঙ্গের পার্বত্য অঞ্চলেও একটা ভারী প্রভাব পরতে চলেছে। এদিকে অসম, মেঘালয়, সিকিম সব জায়গায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির কথা জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।