তুষারাবৃত পূর্ব লাদাখে ভারতীয় সেনার জন্য পাঠানো হচ্ছে হিটিং ডিভাইস

11
তুষারাবৃত পূর্ব লাদাখে ভারতীয় সেনার জন্য পাঠানো হচ্ছে হিটিং ডিভাইস

তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে, এই আবহাওয়ায় দাঁড়িয়ে যুদ্ধ করা, তা ভাবাই যায় না। চারদিক তুষারাবৃত তার মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকায় দুষ্কর। ভারতীয় সেনারা তাদের শারীরিক কসরত করতে হিমশিম খাচ্ছে পূর্ব লাদাখে। এই ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে তাদের এখন গা গরম রাখাটা খুবই জরুরী। তাই এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ভারতীয় সেনার জন্য পূর্ব লাদাখে পাঠানো হচ্ছে হিটিং ডিভাইস। এর সাথে বরফ গলানোর যন্ত্র পাঠাচ্ছে ডিআরডিও স্বয়ং। আর এই সমস্ত যন্ত্র এখন ভারতীয় সেনাদের বেঁচে থাকার জন্য এবং সেখান থেকে লড়াই করার জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। কিছুদিনের মধ্যেই এই সমস্ত যন্ত্রপাতি এবং জিনিসপত্র পৌঁছে যাবে ভারতীয় সেনার হাতে যাতে অনেকটা উপকৃত হবে ভারতীয় সেনা এমনটা দাবি ডিআরডিওর।

গত বছরের মাঝে থেকেই ভারতীয় সেনার সাথে চিনা সেনার যে সীমান্ত যুদ্ধ বেধে ছিল তার এখনও অবসান ঘটেনি। তাই পরিস্থিতি সামাল দিতেই প্রচুর পরিমাণে সেনা মোতায়েন করে ভারত। ইতিমধ্যে সেখানে ৫০ হাজার সেনা মোতায়েন করা আছে তাদের যাতে এই প্রবল শীতে কোন শারীরিক অসুবিধা না হয় সেই কথা মাথায় রেখেই ডিআরডিও কে বিশেষ কিছু পণ্য তৈরি করার প্রস্তাব দিয়েছিল ভারতীয় সেনারা।

ডিফেন্স ইনস্টিটিউট ফর ফিজিওলজি অ্যান্ড অ্যালয়েড সায়েন্সের দিরেক্টর তিনি এই নিয়ে জানিয়েছেন। ভারতীয় সেনা তরফ থেকে মোট ৪২০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে সিয়াচেন এবং পূর্ব লাদাখে অবস্থিত সেনাদের হিমতাপক যন্ত্র বানানোর জন্য। বুখারী নামক একটি স্পেস হিটিং যন্ত্র বানিয়েছে ডিআরডিও, যার উন্নত সংস্করণ বানানোর কাজ চলছে। এই যন্ত্রের আসলে তৈরি হয় কার্বন-মনোক্সাইড, তাছাড়া বিভিন্ন তরফের হওয়ার কারণেও যন্ত্রে কোন গোলযোগ দেখা যায়, কিন্তু এবার সেটা হবার নয়। তবে এখানেই শেষ নয় এর সাথে আরও পাঠানো হবে ফর্সড বাইট আটকাতে অ্যাল কল ক্রিম। এই ক্রিমের বরাদ্দ প্রতিবছর ভারতের তরফ থেকে থাকে তিন লক্ষ জারের। এবার সেই জারের সংখ্যা বৃদ্ধি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তাছাড়া সাথে এবার থাকছে সেই পরিবেশে উপযুক্ত জলের বোতল।