কিভাবে বুঝবেন আপনার শরীরে এই মারাত্মক রোগটি বাসা বেঁধেছে

62
কিভাবে বুঝবেন আপনার শরীরে এই মারাত্মক রোগটি বাসা বেঁধেছে

ব্যথা এতই তীব্র হয় যে রোগী পায়ে মোজা পরতে পারেনা, আক্রান্ত জয়েন্ট বেশ ফুলে যায় এবং চামড়া চকচকে লাল হয়ে যায়।

ব্যথা কমে গেলে আক্রান্ত স্থান চুলকায় ও চামড়া উঠে যেতে পারে।

হঠাৎ ব্যথা শুরু হয়ে ২ থেকে ৬ ঘন্টার মধ্যে তীব্র আকার ধারণ করতে পারে।

প্রায়শই ভোরবেলায় তীব্র ব্যথায় রোগীর ঘুম ভেঙ্গে যেতে পারে।

এর সাথে জ্বর ও অবসাদগ্রস্ততা থাকতে পারে।

৫ থেকে ৬ দিন পর এমনিতেই ভালো হয়ে যায়।

কিভাবে হয়

রক্তে ইউরিক এসিডের মাত্রা বেড়ে গেলে, এই এসিড আস্তে আস্তে  অল্প অল্প করে শরীরের বিভিন্ন খাঁজে জমা হতে থাকে এবং ক্রিস্টালের আকার ধারণ করে। পরবর্তীতে একদিন হঠাৎ করে জয়েন্ট ফুলে উঠে, লাল হয়ে যায় এবং তীব্র ব্যথা হয়।

খাবারের ব্যাপারে সতর্ক হতে হবে। যে সকল খাদ্য শরীরে মেদ বা ওজন বাড়ায়, তা একেবারেই খাওয়া যাবে না অথবা কমাতে হবে।

ডায়েটিং করার নামে খাওয়া দাওয়ায় কোন অনিয়ম করা যাবে না। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী ডায়েটিং করতে হবে।