চুল বাঁধার জন্য ব্যবহৃত হতো সোনার ফিতে! জানুন কোন সময়ে

11
চুল বাঁধার জন্য ব্যবহৃত হতো সোনার ফিতে! জানুন কোন সময়ে

অতি প্রাচীন কালের মহিলারাও সাজ পোশাক করতেন। তখনকার যুগের অবশ্য মেকআপ, বেশভূষা বর্তমানের তুলনায় আলাদা হলেও মহিলারা বরাবর সাজতে ভালোবাসতেন। মহিলাদের পাশাপাশি অবশ্য বেশ কিছু প্রান্তের পুরুষদেরও সাজ পোশাকের তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। সাজ পোশাকের জন্য মহিলা এবং পুরুষের তৎকালীন সময়ে কিন্তু মূল্যবান পাথর বসানো অলংকারও ব্যবহার করতেন।

আজ থেকে হাজার হাজার বছর পূর্বেও সোনা-রুপার ব্যবহার জানতেন মানুষ। সোনার অলংকারের প্রতি তাদের টান ছিল। শরীরের বিভিন্ন স্থানে সোনার অলংকার ধারণ করতেন তারা। চুল বাঁধার জন্য ব্যবহৃত হতো সোনার ফিতে। প্রধানত মহিলারাই এই ধরনের ফিতে ব্যবহার করতেন চুল বাঁধার জন্য। সম্প্রতি প্রত্নতাত্ত্বিকেরা এই ধরনের একটি ফিতে খুঁজে পেয়েছেন। তাদের দাবি আজ থেকে প্রায় ৩৮০০ বছর আগে কোনো এক মহিলার চুল বাধার কাজে এই ফিতেটিকে ব্যবহার করতেন।

এই সোনার অলংকারটি আদতে একটি বাঁকানো ব্যান্ডের মত। সম্পূর্ণ সোনা নয়, প্রকৃত সোনার মধ্যে ২০ শতাংশ রুপো, ২ শতাংশের কম প্ল্যাটিনাম এবং টিনের ভাগ মিশ্রিত করে এই অলংকার বানানো হয়েছিল। প্রত্নতাত্ত্বিকদের দাবি, এই ধরনের সোনার অলংকার দক্ষিণ-পশ্চিম জার্মানিতে পাওয়া দুষ্কর। সোনার অলংকারের অস্তিত্ব এই প্রমাণ রাখে যে জার্মানিতে ব্রিটেন এবং ফ্রান্সের সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর প্রভাব ছিল।

বিজ্ঞান এবং ফ্রান্সের সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী দ্বিতীয় শতাব্দীতে ইউরোপে প্রভাব বিস্তার করে। ২০ বছর বয়সি এক মহিলার সমাধি থেকে এই সোনার অলংকার উদ্ধার করেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা যা প্রাচীন ইতিহাসের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন হিসেবে বিবেচনা করছেন তারা।

Oldest gold

Oldest gold

Oldest gold