কোন কোন কারনে পেটে গ্যাস তৈরি হয়? জেনে নিন

27
কোন কোন কারনে পেটে গ্যাস তৈরি হয়? জেনে নিন

আজকাল স্টমাক গ্যাস একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রতিদিনের। ছোটখাট খাবার খেলেও অনেকের পেটে গ্যাসের মতো সমস্যা হচ্ছে। অনেকেই বুঝে উঠতে পারছেন না যে, কি খাবেন এবং কি খাবেন না। অনেক সময় দেখা যাচ্ছে ভালো খাবার এবং পুষ্টিকর খাবার খেলে পেটে গ্যাসের সমস্যা থেকে যাচ্ছে। এই সমস্যার কারণ হলো অন্ত্রের সমস্যা।

বর্তমানে এই সমস্যা এতটাই ছড়িয়ে গেছে যে শরীরকে সুস্থ রাখতে গেলে এই সমস্যাটাকে আগে সমাধান করা উচিত। এই সমস্যা থেকে যদি বাঁচতে হয় তাহলে অবশ্যই আমাদের অন্ত্রের খেয়াল রাখতে হবে, তবেই শরীর ভালো থাকবে। আমরা অনেকেই জানি না যে ভালো খাবার কিংবা মশলাযুক্ত খাবার খেলে কেন গ্যাসের সমস্যা হয়? এই বিষয়ে কথা বলেছেন কলকাতার বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডক্টর রুদ্রজিৎ পাল। তিনি জানিয়েছেন, “গ্যাসের সমস্যা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। খাবার যখন আস্তে আস্তে অন্ত্রে পৌঁছে সেইসময় ব্যাকটেরিয়া তার বিপাকে অংশগ্রহণ করে। সেই সময় পেটে গ্যাস তৈরি হয়।

এটা সাধারণ রকম শারীরিক প্রক্রিয়া, কিন্তু অনেকেরই এই পেটের গ্যাসে দুর্গন্ধ হয় যেটা কিন্তু বেশ সমস্যা তাই এই বিষয়ে কিন্তু খুব ভালোমতোই নজর দেওয়া প্রয়োজন। যাদের পেটের গ্যাসে গন্ধ হয় তাদের অবশ্যই স্বাস্থ্য উন্নতির দিকে খেয়াল রাখা উচিত।

ডক্টর রুদ্রজিৎ পালের মতে, পেটের গ্যাসের গন্ধ হওয়ার অনেক ধরনের কারণ বর্তমান। খাবার তখন অন্ত্রে পৌঁছায় সেই সময় যখন খাবারকে ভাঙার জন্য ব্যাকটেরিয়া তাতে অংশগ্রহণ করে সেক্ষেত্রে এর মধ্যে এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া থাকে যেগুলো এই গন্ধ সৃষ্টি করে। ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকলি এই ধরনের খাবারগুলো হজম করতে তারা পারে না যার ফলে ওই খাবারগুলোকে ব্যাকটেরিয়া আকড়ে ধরে যার কারণে গন্ধের সৃষ্টি হয়।

এই গ্যাসের গন্ধের পিছনে কোলাইটিস সিলিয়াক ডিজিজের মত রোগ লুকিয়ে থাকতে পারে। কিন্তু গন্ধ হওয়ার পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে তাই শুধুমাত্র বন্ধ হওয়া ব্যাপারটিকে নিয়ে অত চিন্তা করে লাভ নেই। পেটে গ্যাসের সমস্যা থাকলে সে ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিক নামের একটি ওষুধ দেওয়া হয় যেখানে ভালো ব্যাকটেরিয়া থাকে,যেটা কাজ করে যার ফলে স্বাস্থ্যের উন্নতি হয়।

ডক্টর রুদ্রজিৎ পালের মতে, কোন কোন খাবার থেকে গ্যাসের সৃষ্টি হতে পারে সেইগুলোকে আগে নির্বাচন করতে হবে। বাঁধাকপি, ফুলকপি কে অনেকের সমস্যা হয়তো কারো সমস্যা হতে পারে কারোর মসলাজাতীয় খাবার খেয়েও সমস্যা হতে পারে। তাই যে যে খাবারগুলো গ্যাসের সৃষ্টি করে সেই খাবার গুলো কে দূরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। ব্যায়াম করতে হবে যাতে হজম শক্তির ক্ষমতা বাড়ে। প্রায় নিয়ম করে প্রত্যেকদিন ৪৫ মিনিট করে ব্যায়াম করলে শরীরের ক্ষেত্রে সেটা ভালো।