বর যাত্রী হিসেবে নিয়ে না যাওয়ায় বরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করলো বন্ধুরা

10
বর যাত্রী হিসেবে নিয়ে না যাওয়ায় বরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করলো বন্ধুরা

বিয়ে মানেই আনন্দ নাচ-গান খাওয়া-দাওয়া। বিয়ের মধ্যে অন্যতম আকর্ষণ হলো নিমন্ত্রিত বরযাত্রী। এমন আমন্ত্রণ পেলে কে না খুশী হয়। কিন্তু ধরুন আপনি আমন্ত্রিত হলেও আপনাকে না নিয়ে বর যাত্রী যদি রওনা দিয়ে দেয় তাহলে কেমন লাগবে আপনার? সম্প্রতি এমনই একটি ঘটনা ঘটে গেছে উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারে। বিয়েতে এসে বরের বন্ধুরা দেখলেন তাদের ফেলে রওনা দিয়ে দিয়েছে বরযাত্রীরা। স্বাভাবিকভাবে ক্ষুব্দ হয়ে গেলেন তারা কিন্তু এতটাই ক্ষুব্দ হয়ে গেলেন যে আদালতের দ্বারস্থ হলেন বরের বন্ধুরা সবাই মিলে। মানহানির মামলা করে বন্ধুদের কাছ থেকে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করলেন তারা।

রবি নামে ঐ ব্যক্তি হরিদ্বারের বাসিন্দা। সম্প্রতি তিনি বিয়ে করেছেন। বিয়েতে বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন তিনি এবং বলেছিলেন বরযাত্রী যাওয়ার কথা। বিয়েতে নিমন্ত্রিত হয়ে বরযাত্রী রওনা দেওয়ার যে সময় লেখা ছিল, তখনই বরের বাড়ি পৌঁছে গিয়েছিলেন তারা কিন্তু এসে দেখেন বরযাত্রী ততক্ষনে রওনা হয়ে গেছেন। হতাশ হয়ে বরকে ফোন করেন বরের বন্ধুরা কিন্তু বড় বাবাজি যে উত্তর দেন তাতে হতাশা আরো কিছুটা বেড়ে যায়।

বরের বন্ধুদের অভিযোগ অনুযায়ী, বর কে ফোন করতেই তিনি বলে দেন যে দেরি হয়ে গেছে বলে তাদের না নিয়ে চলে গেছে তিনি। তাই আর বরযাত্রী যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। শুধু তাই নয় বন্ধুদের বাড়ি ফিরে যাবার পরামর্শ দেন বর বাবাজি। এই নিয়ে চন্দ্রশেখর নামে এক বন্ধু বলেন, বিয়ের আমন্ত্রণ পত্র লেখা ছিল বিকেল পাঁচটায় বরযাত্রী রওনা দেবে সেই মতো আমরা পৌছে যাই বরের বাড়িতে। কিন্তু গিয়ে দেখি বরযাত্রী চলে গেছে। রবিকে ফোন করলে সে আমাদের বাড়ি চলে যেতে বলে। আমরা নাকি দেরি করে এসেছি তাই আমরা আর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারব না।

অপমানিত বন্ধুরা বরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন এবং ক্ষমা চাওয়ার দাবি করেন রবির কাছ থেকে।