জলদাপাড়া সংলগ্ন এলাকায় আচমকাই বুনো শুয়োরের হামলায় জখম হলেন চার জন

4
জলদাপাড়া সংলগ্ন এলাকায় আচমকাই বুনো শুয়োরের হামলায় জখম হলেন চার জন

আলিপুরদুয়ারঃ ফের বুনো শুয়োরের হামলার ঘটনা ঘটল। জলদাপাড়া জঙ্গল লাগোয়া ফালাকাটা ব্লকের ময়রাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের চার মাইল বাবুপাড়ায় বুনো শুয়োরের হামলায় জখম হয়েছেন মোট চার জন। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আশঙ্কাজনক ব্যক্তির মাথা খুবলে খাওয়ার চেষ্টা করেছে বুনো শুয়োর।

জানা গিয়েছে জখমরা হলেন গৌর দাস, রঞ্জিত মোদক, রমেন দাস, সুজন মোদক। শনিবার ফালাকাটার ময়রাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের চার মাইল বাবুপাড়ায় এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চক্য ছড়িয়েছে। ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা৷ চারজনকে জখম করার পর গ্রামেই একটি বড়ো ঝোপের মধ্যে লুকিয়ে থাকে ঘাতক ওই বুনো শুয়োরটি৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে জলদাপাড়া রেঞ্জের বনকর্মীরা৷ এলাকাটি জাল দিয়ে ঘিরে শুয়োরটিকে ধরার চেষ্টা করছেন বনকর্মীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকাল সাতটা নাগাদ প্রথম বুনো শুয়োরের আক্রমণে গুরুতর জখম হন গৌর দাস। বছর ষাটের গৌরবাবু ঘুম থেকে উঠে গোরুকে খাবার দিচ্ছিলেন৷ আচমকাই বুনো শুয়োরটি আক্রমণ করে তাঁকে। এরপর স্থানীয় লোকজন শুয়োরটিকে তাড়া করলে সেটি আরও তিনজনকে জখম করে৷ পরে তাঁদের ফালাকাটা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ ওখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তিন জনকে ছেড়ে দেওয়া হলেও গৌর দাসকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে৷ তাঁর অবস্থা বর্তমানে সংকটজনক।

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে জলদাপাড়ার জঙ্গল থেকে বেশ একটি বুনো শুয়োর ওই গ্রামে ঢুকে পড়ে। এবিষয়ে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের ডি এফ ও কুমার বিমল বলেন, ” বুনো শুয়োরের হামলায় কয়েকজন গ্রামবাসির জখম হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আমরা জখমদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছি। জঙ্গল লাগোয়া এলাকা। সেই কারনে বুনো শুয়োরের হামলার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে বন কর্মীরা রয়েছেন।”