নিজের ভাইকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার অভিনেত্রী সানাইয়া কাট ওয়ে সহ চার জন

22
নিজের ভাইকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার অভিনেত্রী সানাইয়া কাট ওয়ে সহ চার জন

কন্নড় অভিনেত্রী সানাইয়া কাট ওয়ে কে অনেকেই হয়ত চিনে থাকবেন। সম্প্রতি তাকে গ্রেপ্তার করেছে কর্নাটকের হাবালি গ্রামীণ থানার পুলিশ। প্রেমে বাধা দেওয়ায় ভাইকে নিশংস ভাবে খুন করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এর আগেই এই খুনের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে গ্রেফতার করা হয়েছিল আরও চারজনকে।

যা কে খুন করা হয়েছে তার নাম রাকেশ। তার বয়স মাত্র ৩২ বছর। কিছুদিন আগেই তার ক্ষতবিক্ষত মাথা দেবারাগুদিহালের জঙ্গলে খুঁজে পান পুলিশ কর্মীরা। বাকি অংশ খুঁজে পাওয়া যায় বিভিন্ন বিভিন্ন প্রান্তরে। খন্ড খন্ড করে সেটি ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল বিভিন্ন জায়গায়। ঘটনা তদন্তে নেমে পুলিশ প্রথমে নিয়াজ আহমেদ, তৌসিফ তৌসিফ চান্নাপুর,অমন গিরওয়ানিওয়ালে এবং আলতাফ মুল্লা নামের চার যুবককে গ্রেপ্তার করে।

তাদের জেরা করতে থাকা তদন্তকারী পুলিশ রা জানিয়েছেন যে, ঘটনার দিন ঘটনাস্থলে ছবির প্রচারে এসেছিলেন নায়িকা। এরপরই নায়িকার উপর সন্দেহ হয় অফিসারদের। তাকে তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করেছে নায়িকার কথায় অসঙ্গতি থাকায় তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ অনুমান করেছে যে, নিয়াজ আহমেদ এর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল অভিনেত্রীর। কিন্তু তাতে আপত্তি ছিল অভিনেত্রীর ভাইয়ের। তাই ভাইকে চিরতরে সরিয়ে দেবার জন্য পরিকল্পনা করতে থাকেন অভিনেত্রী। এই কাজে তাকে সঙ্গ দেন চার যুবক। রাকেশের বাড়িতেই খুন করা হয়েছে বলে মনে করছেন পুলিশ। বাড়িতে খুন করে তার মাথা সহ বিভিন্ন অংশে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, নতুন মডেলিং দুনিয়ায় নাম করে তারপর অভিনয় জগতে এসেছিলেন সানায়া। ইদাম প্রেমাম জীবনম, নামক একটি ছবির হাত ধরে অভিনয় জগতে তার যাত্রা শুরু করেছিলেন তিনি।

সম্প্রতি একটি অ্যাডাল্ট কমেডিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। শান্ত স্বভাবের বলেই তাকে জানেন সিনেমা জগতের সকলে। তাই স্বাভাবিকভাবেই এই কাজের সঙ্গে যে তিনি জড়িত এ কথা বিশ্বাস করতে চাইছেন না অনেকেই। তবে এটি যে একটি ঠান্ডা মাথার খুনির কাজ তা বোঝা যাচ্ছে ঘটনা থেকে।