সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সম্পর্কের জের, 26 বছর বয়সী মহিলাকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিল এক যুবক

14
সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সম্পর্কের জের, 26 বছর বয়সী মহিলাকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিল এক যুবক

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বর্তমান যুগে যেমন বহু ঘটনা বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের কাছে ছড়িয়ে পড়ে। তেমনি সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে পৃথিবীর এক প্রান্তের মানুষের সঙ্গে অপর প্রান্তের মানুষের পরিচয় ঘটে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সম্পর্কের যেমন ভালো দিক ও আছে তেমন আবার খারাপও আছে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পরিচয় ঘটা এক বন্ধু 26 বছর বয়সী মহিলাকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিল। এই ঘটনাটি এবার ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের জ্ঞানশীল সুপার সিটি এরিয়ায়৷ প্রিয়া আগরওয়াল নামের ওই মহিলার সাথে বেশ কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিচয় হয় গোলু গোতর নামে ওই যুবকের। পরবর্তিতে ঐ যুবকটি মহিলাটিকে খুন করে মহিলার 6 বছর বয়সী কন্যার সামনে। সমগ্র ঘটনাটি ফুটে উঠেছে সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় মহিলার ঘাড় ও গলা দিয়ে প্রচুর রক্তপাত হচ্ছে। মহিলাটি কাতরাতে কাতরাতে একটি দোকানের সিঁড়িতে এসে পড়ে যান। ওই মহিলার ছয় বছরের শিশুটি তাঁর মায়ের ওইঅবস্থা দেখে মায়ের দিকে ছুটে আসে তখন প্রিয়া আগরওয়াল নামে ঐ মহিলাটি তার কন্যাসন্তানটিকে সরিয়ে দেন। অপরদিকে অভিযুক্ত খুনি নিজের স্কুটারে উঠে ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। এই নিশংস হত্যার ঘটনাটি তুলে ধরেছে সর্ব ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

পুলিশ এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। লাসুদিয়া পুলিশ স্টেশনের পুলিশ ইনচার্জ জানিয়েছেন অভিযুক্ত খুনিকে মদ্যপ অবস্থায় তারা গ্রেপ্তার করেছেন। ওই পুলিশ স্টেশনের ইনচার্জ জানিয়েছেন ওই যুবকটি স্বীকার করেছে যে সে ওই মহিলাকে খুন করেছে। বেশ কিছুদিন ধরে ওই মহিলাকে ওই যুবকের সাথে ঠিকভাবে কথা বলছিল না বা তার সঙ্গে সঠিক ব্যবহার করছিল না তাই সে ওই মহিলাটিকে খুন করার পরিকল্পনা করেছে।

এএসপি রাজেশ রঘুবংশী জানিয়েছেন প্রিয়া আগারওয়াল কে একটি ফাঁকা প্লটে ডেকে পাঠায় অভিযুক্ত খুনিটি। পিয়া তার ছয় বছরের কন্যা সন্তানকে সেখানে নিয়ে হাজির হয় তখনই হঠাৎ করে ওই যুবকটি ওই মহিলার উপর ছুরি চালায়। স্থানীয় মানুষজন ওই মহিলাটিকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।