দিওয়ালিতে বাজি ফাটানোর সময় অবলম্বন করুন এই বিশেষ সতর্কতা গুলি

10
দিওয়ালিতে বাজি ফাটানোর সময় অবলম্বন করুন এই বিশেষ সতর্কতা গুলি

আমাদের সকলেরই অন্তত প্রিয় একটি উৎসব দীপাবলি বা দিওয়ালি। এটাকে আলোর উৎসবও বলা হয়ে থাকে। কারণ সকল অন্ধকারকে মুছে এই দিন দীপ জ্বেলে বা মোম বাতি জ্বেলে আমরা আমাদের বাড়ির চারপাশটা আলোয় আলোকিত করি। বলা হয় এতে মনের অন্ধকারও কেটে যায়। কিন্তু এই উৎসবের সবচেয়ে বড়ো যে আকর্ষণ থাকে তা হলো বাজি ফাটানো। এই পুজোয় প্রচুর বাজি ফাটানো হয় নানা রকমের। বাচ্চা থেকে বুড়ো সকলেই বাজি ফাটান। আর তাই কিছু বিশেষ সাবধানতা অবশ্যই মেনে চলা উচিত পুজোর দিনে। বিশেষ করে বাজি ফাটানোর সময়। আসুন জেনে নেওয়া যাক।

১. নিজের পোশাকের ওপর নজর দেওয়া :- আপনি দীপাবলিতে নিশ্চই খুব সুন্দর করে নিজেকে সাজিয়ে তুলবেন ভেবে রেখেছেন। সাজুন কিন্তু এমন পোশাক পরবেন না যা থেকে কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। যেমন – নাইলন, জর্জেট, শিফন এই মেটিরিয়াল জাতীয় শাড়ি বা সালওয়ার যাই পড়ুন না কেনো বিশেষ করে এই দিন এগুলো অ্যাভয়েড করুন। এই ধরনের পোশাক খুব সিল্কি হয়। খুব তাড়াতাড়ি আগুন ধরে যেতে পারে। তাই এই সময়টা এই ধরনের জামা কাপড় এড়িয়ে চলাই ভালো। বদলে সুতির কোনো পোশাক পড়ুন। হালকা ঢিলে ঢালা পোশাক তাহলে এই ধরনের দুর্ঘটনা থেকে অনেকটাই রেহাই পাওয়া যাবেন
শুধু তাই নয় অনেকেই ঝলমলে সিনথেটিক ওড়না নেয় সালোয়ার পড়লে। এই ওড়নাটা এই সময়ে না নিয়ে কুর্তা টাইপ কোনো পোশাক পড়ুন।

২. কাঁচের চুড়ি পড়বেন না :- এই সময় অনেকেই আছেন যারা শাড়ি বা সালওয়ার কামিজ এর সাথে ম্যাচিং করে রং বেরঙের কাঁচের চুড়ি পড়েন। কিন্তু এই চুড়ি পরে আগুনের কাছে গেলে ওই চুড়ি গরম তাপ লেগে ফেটে গিয়ে হাত কেটে যেতে পারে। অনেক গরম হলে হাত পুড়ে যেতেও পারে তাই এই সময় এরকম চুড়ি না পরাই ভালো।

এগুলো একটু মাথায় রেখে পালন করুন আলোর উৎসব। নিজেও সাবধান হন নিজের বাচ্চা ও পরিবারের মানুষকেও সচেতন করুন।