কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী তিথিতে পালন করুন এই নিয়ম গুলি! পাবেন পুণ্যফল

12
কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী তিথিতে পালন করুন এই নিয়ম গুলি! পাবেন পুণ্যফল

আমাদের হিন্দু ধর্মের সকল দেবতাদের মধ্যে শ্রী কৃষ্ণ হয়তো সবচেয়ে প্রিয় ও আদরের দেবতা। হিন্দু ধর্মের প্রত্যেকটা মানুষই এই দেবতাকে পছন্দ করেন বেশী। শ্রী কৃষ্ণ অনেক নামে পূজিত হন। কেও তাঁকে মাধব বলেন কেও বলেন গোবিন্দ কেও বলেন কানাই। শ্রী কৃষ্ণকে গোপাল বলেও ডাকা হয়। আর বাঙালির অধিকাংশ ঘরেই গোপাল ঠাকুরকে দেখতে পাওয়া যায়। আর এই গোপাল যেই বাড়িতে থাকে তাঁরা তাদের নিজেদের সন্তানের মতন করে রাখেন তাঁকে।  শ্রী কৃষ্ণের জন্মতিথি উপলক্ষে সকলে তাঁদের বাড়ির গোপালের জন্য বিশেষ ব্যাবস্থা করেন। অনেক পছন্দ মতো খাবারের সাথে তাঁকে পূজা করেন বাঙালিরা।

চলতি বছরে ১৮ ও ১৯ তারিখ জন্মাষ্টমী পালিত হবে। অষ্টমী তিথি ১৮ তারিখ রাত ৯টা ২১ মিনিট থেকে শুরু করে ১৯ অগাস্ট রাত ১০টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত থাকবে। এই বছর দুদিন ধরে পড়েছে জন্মাষ্টমী তিথী। যাঁরা উদয়তিথী মেনে পূজো করতে চান তাঁরা ১৯ অগাস্ট কৃষ্ণের পুজো করবেন। আর যাঁরা অষ্টমী তিথিকে প্রাধান্য দেন বেশী সেই অনুযায়ী পূজো করে থাকেন তারা ১৮ আগস্ট পূজো করবেন। এই মহা তিথিতে বেশ কিছু উপায়ে পূজো করলে মা লক্ষ্মী ও শ্রী কৃষ্ণের আশীর্বাদ পাওয়া যায়। আসুন সেই উপায় গুলো জেনে নেওয়া যাক।

তুলসীর মালা জপ করুন :- কৃষ্ণ মন্দিরে গিয়ে ক্লীং কৃষ্ণায় বাসুদেবায় হরিঃপরমাত্মনে, প্রণতঃক্লেশনাশায় গোবিন্দয় নমো নমঃ- মন্ত্রটি ১১ মালা জপ করুন। অনেক সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজে পাবেন।

সন্তান লাভ :- অনেকেই মনে করেন যে এই জন্মাষ্টমী তিথিতে নাড়ু গোপালের পূজো করলে সন্তান লাভ হতে পারে। শুধু তাই নয়, যেকোনো গোরু বা বাছুরের মূর্তি এদিন বাড়িতে এনে তাকেও পুজো করতে হবে। তাহলেই সন্তান লাভ করতে পারেন আপনিও।

ধন বৃদ্ধি হয় :- জন্মাষ্টমীর সকালে স্নান সেরে হলুদ ফুলের মালা রাধা কৃষ্ণের মন্দিরে গিয়ে অর্পণ করে আসুন এতে শ্রী কৃষ্ণের আশীর্বাদ পাবেন আপনি। অর্থ আগমন হবে আপনার ঘরে। এছাড়াও, এদিন কৃষ্ণকে পান পাতা অর্পণ করুন। এর পর সেই পান পাতায় রোলী দিয়ে শ্রী যন্ত্র লিখে লকারে রেখে দিন। এই উপায়ট ধন বৃদ্ধির যোগ তৈরি করে।

চাকরি ও ব্যাবসায় উন্নতি হয় :- শাস্ত্র অনুযায়ী, আপনি যদি এইদিন ৭টি কুমারী মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তাঁদের পায়েস ও সাদা মিষ্টি খাওয়ানো যায় এবং এর পরের আরো ৫ টি শুক্রবার এভাবেই একই নিয়ম পালন করা যায় তবে ব্যাবসা ও চাকরিজীবনে অনেক উন্নতি হবে বলে মনে করা হয়।

মনস্কামনা পূরণ :- জন্মাষ্টমীর দিন সকালে দক্ষিণবর্তী শঙ্খে জল ভলে কৃষ্ণের অভিষেক করুন। এই উপায় করলে মনস্কামনা পূরণ হয়। পাশাপাশি যশ ও বৈভব বৃদ্ধি পায়। এই উপায়ে মা লক্ষ্মী শীঘ্রই প্রসন্ন হবেন।
এছাড়াও, মা লক্ষ্মীর আশীর্বাদ লাভের জন্য জন্মাষ্টমীতে কলা গাছ লাগান। কলা গাছটি বড় হয়ে গেলে দান করে দিন।

সুখ – সমৃদ্ধি লাভ হয় :- শুভ জন্মাষ্টমী তিথিতে রাত ১২টা নাগাদ জাফরান মিশ্রিত দুধ দিয়ে গোপালের অভিষেক করুন। এই উপায় করলে জীবনে সুখ-সমৃদ্ধির বাস হয়। পাশাপাশি জন্মাষ্টমীর দিনে হলুদ চন্দন বা জাফরান গোলাপ জল মিশিয়ে ললাটে তিলক লাগান। প্রতিদিন এই উপায় করলে মন শান্ত হয় এবং জীবনে সুখ-সমৃদ্ধির আগমন ঘটে। এভাবেই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন আপনি।