মৎস্যজীবীদের নদীতে নামতে নিষেধ, দিঘার পর্যটকদের সতর্ক করছে প্রশাসন

7
মৎস্যজীবীদের নদীতে নামতে নিষেধ, দিঘার পর্যটকদের সতর্ক করছে প্রশাসন

রাজ্যের একাধিক জায়গায় শনিবার থেকেই ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। নিম্নচাপ ও কোটালের জোড়া ফলায় উত্তাল হতে পারে সমুদ্র। তারই প্রভাব পড়তে পারে উপকূলে।

মৎস্যজীবীদের নদীতেও নামতে নিষেধ করা হয়েছে । মৎস্য দফতরের তরফ সতর্ক করে লাগাতার মাইকিং শুরু করা হয়েছে উপকূলের জেলাগুলিতে। শনিবার রাতের মধ্যেই অধিকাংশ ট্রলারকে সুন্দরবনের বিভিন্ন ঘাটে ফিরে আসতে বলা হয়েছে।

অন্যদিকে পুলিশ ও প্রশাসন, অন্যদিকে, দিঘাতেও পর্যটকদের সতর্ক করছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানা, পাথর প্রতিমা ও সাগরের উপকূল এলাকার বাসিন্দা ও মৎস্যজীবীদের সতর্ক করা হয়েছে। ব্লক প্রশাসন ও মৎস্য দফতরের তরফ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে।

কোটালের জেরে নদী ও সমুদ্রে প্রবল জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। সে কথা জেনেই আতঙ্কিত সুন্দরবনবাসী। উপকূলবর্তী ব্লকগুলোর বেহাল বাঁধগুলোর ওপর নজর রাখতে বলা হয়েছে সেচ দফতরকে। সুন্দরবনের ব্লক অফিসগুলোতে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগর ১ ও ২, কাঁথি দেশপ্রাণ, কাঁথি ১, খেঁজুরি, নন্দীগ্রাম, হলদিয়ার মতো ব্লকগুলিতে প্রশাসনের তরফ থেকে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সৈকত শহরে পুলিশ প্রশাসন কড়া নজর রাখছে। নামতে দেওয়া হচ্ছে না পর্যটকদের। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি চলছে দিঘা সহ জেলা জুড়ে।