নিকাশি নালা তৈরি করতে গিয়ে খোঁজ মিলল গোপন সুড়ঙ্গের! গুপ্তধনের আশায় ভিড় জনতার

17
নিকাশি নালা তৈরি করতে গিয়ে খোঁজ মিলল গোপন সুড়ঙ্গের! গুপ্তধনের আশায় ভিড় জনতার

রাজনগরের দিঘিয়াগাল গ্রামে পঞ্চায়েতের তরফে একটি নিকাশি নালা তৈরি করার কাজ চলছিল। কাজ চলছে চলছে আচমকাই মাটির নিচে একটি সুড়ঙ্গের খোঁজ মেলে। এই সুড়ঙ্গের খবর আগুনের মতো ছড়িয়ে পড়ে ওই এলাকায়। যার পর থেকেই কার্যত সাধারণ মানুষের মনে গুপ্তধন পাওয়ার আশা জাঁকিয়ে বসে। সেই কারণে তারা সুড়ঙ্গে নেমে গুপ্তধনের খোঁজ করতে লেগে যান। রাতের অন্ধকারে সুড়ঙ্গের নেমে হাতরাতে থাকেন বহু মানুষ।

এই খবর পুলিশের কানে পৌঁছাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশ। যারা সুড়ঙ্গ খুঁড়ে গুপ্তধন পাওয়ার আশায় ছিলেন পুলিশকে দেখেই তারা এলাকা পরিত্যাগ করেন। পুলিশ এসে ওই সুড়ঙ্গের মুখ বন্ধ করে দিয়ে গিয়েছে। স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য ও নিকাশি নালার তৈরি করতে আসা এক শ্রমিকের দাবি এই গর্ত আসলে সুড়ঙ্গ নয়। দেয়াল চাপা পড়ে গিয়ে এখানে একটি ফাঁকা জায়গার সৃষ্টি হয়েছিল। যাকে সাধারণ মানুষ সুড়ঙ্গ বলে মনে করছেন।

এর ঠিক পাশেই রয়েছে একটি মাজার শরীফ। দরগা শরীফের পীরবাবা এই সুড়ঙ্গ দিয়ে যাতায়াত করেন বলে বিশ্বাস ভক্তদের। সুড়ঙ্গটি আবার রাজনগরের রাজাবাড়ি থেকে বেশি দূরে নয়। অতএব রাজবাড়ির সঙ্গে এই সুড়ঙ্গের যোগাযোগ রয়েছে কিনা সেই নিয়েও সন্দেহ দেখা দিয়েছে একদল মানুষের মনে। সেই থেকেই গুপ্তধন থাকার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল সাধারণ মানুষের মনে।

ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে। শ্রমিকরা যখন কাজ করছিলেন তখন হঠাৎ করেই তারা এই সুড়ঙ্গের খোঁজ পান। এই খবর সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রচার হয়ে যেতেই তারা ছুটে আসেন সেখানে। তারপর মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত খোঁড়াখুঁড়ি চলেছে সুড়ঙ্গে। পরে অবশ্য পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে।