জেনে নিন চাঁদকে কেন বিভিন্ন নামে ডাকা হয়

7
জেনে নিন চাঁদকে কেন বিভিন্ন নামে ডাকা হয়

মহামারীর মৃত্যু-মিছিল এর মধ্যেও মানুষ আগামী দুর্গোৎসবের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছেন। ইতিমধ্যেই ধীরে ধীরে বর্ষা চলে গিয়ে আকাশে দেখা যাচ্ছে সাদা মেঘের ভেলা। আকাশে বাতাসে কান পাতলেই শোনা যাবে, দূর্গা পূজার আগমনী সুর।
মানুষের বর্তমান জীবন আগে থেকে অনেকটাই জৌলুস হীন হয়ে গেলেও জৌলস কিন্তু হারায়নি শরতের আকাশের চাঁদ। নিজস্ব মহিমায় আকাশে জ্বলজ্বল করে দেখা যাচ্ছে তাকে। চলতি সেপ্টেম্বর মাসে এবার রাতের আকাশে জ্বলজ্বল করতে দেখা যাবে “কর্ণ মুন”।

এই চাঁদ টিকে অনেকে “ফসল কাটার চাঁদ” বলে জানেন। যারা এই চাঁদের চক্র অনুসরণ করে না তাদের জন্য মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা অনুসারে, এই পূর্ণিমা শেষ হবে আগামী ২২ শে সেপ্টেম্বর, ভৌগলিক মতানুযায়ী দিন রাত হয় সমান।
কিন্তু এবার প্রশ্ন হতেই পারে, পূর্ণিমা তিথিতে চাঁদ কে কেন ” কর্ন মুন” বলে ডাকা হয়? যেহেতু শারদীয় বিশুপক্ষের আগে এই পূর্ণিমা আসে এবং এটি অনুসরণ করে পহেলা অক্টোবর এর পূর্ণিমার চাঁদকে হারভেস্ট মুন এবং ৩১ শে অক্টোবর পূর্ণিমাকে হান্টার মুন হিসেবে ধরা হয়।

এই কথার অর্থ হল হ্যালোইনের রাতে দেখা যাবে এই বিরল নীল চাঁদ টিকে। ওল্ড ফাদার এর আলমানাক অনুসারে, এই নীল চাঁদ ১৮ থেকে ১৯ বছরের মধ্যে একবার দৃশ্যমান হয়। হ্যালোইনের পরবর্তী নীল চাঁদ দেখা যাবে ২০৩৯ সালে।
অনেকে এই এই চাদটিকে বার্লি মুন বলে ডাকেন, যেহেতু কৃষকেরা এই সময় বার্লি ফসল তোলার উপযুক্ত সময় হিসেবে মনে করেন। তাই এই চাঁদটি কে বার্লি ফসলের নাম অনুসারে বার্লি মুন বলেন অনেকে।