আজ জেনে নিন যোগী প্রহ্লাদ জানি সম্পর্কে যিনি শুধুমাত্র বাতাস খেয়েই নাকি ৯০ বছর পর্যন্ত বেঁচে ছিলেন

26
আজ জেনে নিন যোগী প্রহ্লাদ জানি সম্পর্কে যিনি শুধুমাত্র বাতাস খেয়েই নাকি ৯০ বছর পর্যন্ত বেঁচে ছিলেন

যোগী প্রহ্লাদ জানি, অনেকেই হয়তো তাকে চিনবেন না। আজ তার সম্পর্কে আমরা কিছু কথা বলব। সম্প্রতি তার মৃত্যুর সংবাদ প্রকাশে আসতে শোকের ছায়া নেমে গেছে তার ভক্ত মহলে। 90 বছর বয়সে নিজের গ্রাম চারাআদায় মৃত্যু হল যোগী প্রহ্লাদ জানি ওরফে চুনড়িওয়ালা মাতাজির। এতদিন কোনো রকম জল ছাড়া শুধুমাত্র যোগাসনের মাধ্যমে বেঁচে ছিলেন তিনি। যোগাসনের সাথি সাথি বাউল সাধনা করতেন তিনি। অন্ন না খেয়ে শুধুমাত্র বাতাস খেয়ে নাকি ৯০ বছর পর্যন্ত বেঁচে ছিলেন তিনি। মা অম্বর কৃপায় নাকি তার এই জীবনীশক্তি ছিল।

সমগ্র গুজরাট রাজ্যে বেশ জনপ্রিয়তা ছিল এই যোগী বাবার। তার এই অসম্ভব সাধনার কথা আগেও শুনেছে বহু মানুষ। অবশেষে ৯০ বছর বয়সে নিজের দেহ রাখলেন তিনি। তার মরদেহ গুজরাটের বনাস কন্ঠ জেলার আম্বাজি মন্দির এর নিকটে অবস্থিত আশ্রম গুহায় রাখা ছিল।

অম্বর একনিষ্ঠ শিষ্য প্রহ্লাদ জানির মাতাজির সাজপোশাকে ছিল বেশ আলাদা। তিনি পরনে পড়ে থাকতেন লাল কাপড়। কপালে লালটিপ, এক মুখ দাঁড়ি গোঁফ। এমনকি যে কোনো ভারী গহনা পড়ে থাকতে দেখা যেত তাকে। শোনা যায় সর্বক্ষণ ওড়না ব্যবহার করতেন বলে তাকে চুনড়িওয়ালা মাতাজি বলা হত।

তবে এই মাতাজির দাবিকে সম্পূর্ণ অসম্ভব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আমেরিকার হেনরি ফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পারিজাত এই ব্যাপারটিকে ভাওতাবাজি বলে অভিহিত করেছেন। কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে এর কোন জায়গা নেই বলেই তিনি জানিয়েছেন। এটি সম্পূর্ণ মানুষকে বিব্রত করার চেষ্টা বলেই মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।