জেনে নিন শরীরের অধিক লোম থাকা ব্যক্তিদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য

245
জেনে নিন শরীরের অধিক লোম থাকা ব্যক্তিদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য

ভারতীয় জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, হস্ত কপাল এবং অন্যান্য দেহের স্থান দেখে বলে দেওয়া যায় তার ভবিষ্যৎ। এমনকি মুখমন্ডলের বিষয় যেকোনো কথা বলে দিতে পারেন জ্যোতিশাস্ত্র বিদরা। মানুষের শরীর পর্যবেক্ষণ করে মানুষের চরিত্র বিচার করা যায়। প্রাচীন সমুদ্রশাস্ত্র মনে করেন যে,শরীরের বিশেষ কিছু লক্ষণ বিশ্লেষণ করে বলে দেওয়া যায় মানুষের অতীত ও বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ। তাই আজ আমরা সামুদ্রিক শাস্ত্র অনুযায়ী দেহের বিভিন্ন গঠন অনুযায়ী ভবিষ্যৎ দেখার পন্থা বলে দেব।

দাঁতের উপরে দাত: যে সমস্ত মানুষের দাঁতের উপরের দাঁত থাকে, তারা খুবই ভাগ্যবান মানুষ হয়ে থাকেন। এই সমস্ত মানুষেরা বুদ্ধিমান, সৃজনশীল এবং কলা বিদ্যায় পারদর্শী হয়ে থাকেন। এরা খুবই বিলাসিতা প্রিয় হয়। যাদের দাঁত সমান মাপের হয়, এবং কোন ফাঁক থাকে না, তাদের ভাগ্য অসামান্য হয়ে থাকে, এরা কখনো কোনো অর্থ কষ্ট পান না জীবনে। যাদের দাঁত হলদেটে থাকে, তাদের ভাগ্য দারুন হয়ে থাকে।অপরদিকে সাদা ঝকঝকে দাঁত থাকে তাদের অর্থ ভাগ্য একেবারেই ভাল হয় না।

মেয়েদের ঠোটের উপর লোম: প্রাকৃতিকভাবে এবং জিনগতভাবে অনেক মেয়েদের ঠোটের উপর লোম থাকে।সমুদ্র শাস্ত্র মতে যে সমস্ত মেয়েদের ঠোটের উপর লোম থাকে, তারা বেশি রাগী হয়ে থাকেন।এরা স্বামীর উপর কৃতিত্ব চালাতে ভালোবাসেন।

শরীরের অধিক লোম: যাদের জন্ম থেকেই শরীরে অতিরিক্ত লোম থাকে তাদের কামনা বাসনা এবং ভোগবিলাস কে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। এরা যেমন খেতে ভালোবাসেন তেমন পরিশ্রম করতে ভালোবাসেন। নিত্য নতুন কাজ করতে ভালোবাসেন এনারা।যেসব মানুষের বুকের উপর অধিক লোম থাকে তারা অল্পতেই সন্তুষ্ট হয়ে থাকেন। এনারা বুদ্ধি এবং শক্তিতে অন্যের থেকে বেশি এগিয়ে থাকেন। আর্থিকভাবে সচ্ছল থাকেন এরা। এদের দাম্পত্য জীবন হয় মধুর।অন্যদিকে যাদের বুকের ভেতর লোম থাকে না তারা বেশিরভাগ স্বার্থপর হয়ে থাকেন। এরা বিশ্বাসের যোগ্য হয় না।

হাতে ৬য়টি আঙুল: আমার অনেক মানুষ আছেন যাদের হাতে ৬ টি আঙ্গুল থাকে। এরা সম্পদের উপর প্রভাব ফেলতে পারেন। এদের ভাগ্য খুবই ভালো হয়। দেহ সৌন্দর্য দেখার মত হয়।

উরু চিকন: যাদের উঠে চিকন হয় তারা বেশিরভাগ শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকেন। এনারা দয়ালু, ক্ষমতাবান এবং সাহসী হয়ে থাকেন। অন্যকে পরামর্শ দেবার সঙ্গে সঙ্গে অন্যের পরামর্শ শোনেন। এরা খুবই চালাক প্রকৃতির হয়ে থাকে, ঠকানো খুবই কঠিন এদের।

নাকের ছিদ্র: নাকের ছিদ্র ছোট অথবা বড় মানুষের মনের উপর অনেক বেশি প্রভাব ফেলে। যাদের নাকের ছিদ্র ছোট হয়, তাদের মনে ছোট হয়ে থাকে। আমার মানুষ কারোর প্রিয় হয় না। অপরদিকে লম্বা ছিদ্র থাকা মানুষেরা খুবই দূরদর্শী এবং কর্মঠ হয়ে থাকেন।