এই ছোট্ট একটা পরীক্ষা থেকেই জানুন শরীরে কোন রোগ আছে কি না?

5
এই ছোট্ট একটা পরীক্ষা থেকেই জানুন শরীরে কোন রোগ আছে কি না?

আমাদের শরীরে কোন সমস্যা হলেই আমরা প্রথমে ডাক্তারের কাছে ছুটি। আবার অনেক সময় ঘরোয়া কিছু টোটকার দ্বারাও শরীর ঠিক হয়ে যায়। আমাদের সবার বাড়ির রান্না করে চামচ আছে এবার চামচ দিয়ে চলুন পরীক্ষা করে নেয়া যাক আমাদের শরীরে কার কী অসুখ আছে।

ভোরবেলায় উঠে কোনো খাবার এমনকি জল না খেয়েও এই পরীক্ষাটি করতে হবে। আপনার জিভের মধ্যে একটি চামচ চেপে দিন। চামচ থেকে এমনভাবে জীবের মধ্যে চেপে দেবেন যাতে লালা চামচটিতে ভালোভাবে লেগে যায়। এবারে ওই চামচ প্যাকেটের মধ্যে রেখে দিন। তারপর দুই প্যাকেট থেকে ল্যাম্পের কাছে বা সূর্যের আলোর নিচে এক মিনিটের জন্য রেখে দিন।

১) যদি দেখেন চামচ থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে, তাহলে জানবেন আপনার লিভার বা ফুসফুসের সমস্যা আছে।
২) আবার এই গন্ধ যদি মিষ্টি বা কোনও ফলের মতো হয় তবে বুঝবেন ডায়াবেটিস বাসা বেঁধেছে আপনার শরীরের মধ্যে।
৩) অপর দিকে যদি দেখেন গন্ধটা অ্যামোনিয়ার মতো ঝাঁঝালো। তবে বুঝতে হবে কিডনির সমস্যা আছে।
৪) চামচে মধ্যে সাদা দাগ পরা ফুসফুসের সংক্রমণের নির্দেশ দেয়।
৫) আর চামচের মধ্যে বেগুনি রঙের দাগ বলে দেয় যে আপনার রক্ত চলাচলের সমস্যা থাকতে পারে। রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা খুব বেশি থাকলে বা রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা পরিমাণ কম হলে এরকম হয়।

আমাদের জিভের সাথে আমাদের শরীরের নানা অংকের অবিচ্ছেদ্য সম্বন্ধে রয়েছে। তাই শরীরের নানা অসুখ হলে জিভের রং অন্যান্য ধরনের দেখতে হয়।

ফ্যাকাসে গোলাপি রঙের জিভ– আমাদের শরীরে রক্ত শূন্যতার নির্দেশ দেয় ফ্যাকাসে ধরনের জিভ। ফ্যাকাসে জিভ হলে অবশ্যই পরীক্ষা করিয়ে নিন আপনার শরীরের রক্তের মাত্রা কেমন আছে।

সাদাটে জিভঃ শরীরে যখন জলের ঘাটতি ঘটে তখন জিভে সাদা ধরনের এক আস্তরণের সৃষ্টি হয়। এই আস্তরণটি জিভ পরিষ্কার করলেও যেতে চায়না।

লালচে জিভঃজিভ যদি লালচে অথবা গাঢ় গোলাপি বর্ণের হয় এবং জিভে স্ট্রবেরির দানার মতো ছোট ছোট দানা হয়ে থাকে তাহলে জানবেন দুধরনের শারীরিক সমস্যা হতে পারে। জ্বরের কারণে অথবা ফলিক এসিড ও ভিটামিন বি ১২-এর অভাবে।

খয়েরী দাগঃ জিভের মধ্যে অনেক সময়ই গাঢ় খয়রি রঙের দাগ দেখতে পাওয়া যায়। এই রকম দাগ দেখা গেলে অবশ্যই তাড়াতাড়ি ডাক্তারের পরামর্শ নিন কারণ এই ধরনের দাগ জিভের মধ্যে দেখা গেলে শরীরে ক্যান্সারের মত মরণব্যাধি বাসা বাঁধার লক্ষণ।