জন্ম মাসের মধ্যেই লুকিয়ে আছে আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, জেনে নিন সেই সম্পর্কে

47
জন্ম মাসের মধ্যেই লুকিয়ে আছে আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, জেনে নিন সেই সম্পর্কে

প্রতিটি মাস অপর মাস থেকে ভিন্ন হয়। আমরা বাঙালিরা ইংরেজির এপ্রিল মাস অর্থাৎ বৈশাখ মাসে ১লা বাংলার নববর্ষকে আহ্বান করে নি বর্ষার তীব্র দাবদাহের সঙ্গে। আবার জুলাই অর্থাৎ শ্রাবণ মাসে শুরু হয় বর্ষার বারিধারা। ডিসেম্বর বা অগ্ৰাহয়ণ মাসে বইতে থাকে শীতল বাতাস। ঠিক তেমনভাবেই আপনার জন্মের মাসগুলোও বলে দিতে পারি আপনার সম্পর্কে বেশ কিছু গোপন তথ্য। চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক সেই তথ্যগুলো কি কি।

জানুয়ারি- যে সমস্ত জাতক-জাতিকারা জানুয়ারি মাসে জন্মগ্রহণ করে তারা কাজে-কর্মে খুবই পারদর্শী হয়। কাজকর্মের জন্য তাদেরকে স্বতন্ত্রভাবে চেনা যায়। জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহের দিকে জন্মগ্রহণকারী জাতক-জাতিকাদের মধ্যেই অনন্য গুণ থাকে।

ফেব্রুয়ারি- যে সমস্ত ছেলে মেয়েরা ফেব্রুয়ারি মাসে জন্মায় তারা সবার সাথে মিলেমিশে জীবন যাপন করতে পছন্দ করে। সকলের প্রতি তারা সংবেদনশীল হয়ে থাকে।

মার্চ- মার্চ মাসে জন্ম গ্রহণকারী জাতক-জাতিকারা সহজে কাউকে বিশ্বাস করতে পারে না। তাদের এই বিশ্বাস না করার কারণ এর জন্য তারা অনেক মূল্যবান সম্পর্ক হারিয়ে ফেলে। তবে এই সব ছেলেমেয়েরা জীবনে বহু অর্থ উপার্জন করতে পারে।

এপ্রিল- এপ্রিল মাসে জন্মগ্রহণকারী জাতক জাতিকারদের স্বভাব বসের মতো হয়ে। এই সমস্ত ছেলে মেয়েদের হাত সৃজনশীল হয়ে থাকে।

মে- মে মাসে জন্ম গ্রহণকারী মানুষেরা জন্মকাল থেকেই শিল্প সত্তাকে বহন করে চলে সারা জীবন। এরা গান নাচ আঁকা প্রভৃতি কলা বিদ্যায় বেশ পারদর্শী হয়।

জুন- জুন মাসে জন্ম গ্রহণকারী ব্যক্তিরা রোমান্টিক প্রকৃতির হয়। তবে অনেকে মনে করে থাকি যে এই মাসে জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তিরা হিংসুটে প্রকৃতির হয়।

জুলাই- জুলাই মাসে জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তিদের জ্ঞানী মানুষ হয়। তারা জীবনের বেশিরভাগ সময়ই নিজের পরিবারের সঙ্গে সংযুক্ত থাকেন।

আগস্ট- আগস্ট মাসে জন্ম গ্রহণকারী জাতক-জাতিকারা মানুষকে ভালোবাসতে পারে। তাদের বিবাহিত জীবন বেশ সুখেই কাটে। তারা তাদের বিবাহিত জীবনকে বেশ গুরুত্ব দেয়।

সেপ্টেম্বর- আগস্ট মাসে যে সমস্ত মানুষেরা জন্মায় তারা বুদ্ধিমান এবং নম্র স্বভাবের হয়ে থাকে। যেকোনো পরিস্থিতিতেই তারা নিজেদেরকে মানিয়ে নিতে পারে।

অক্টোবর- অক্টোবরে জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তিরা ভাগ্যবান বলে বিবেচিত হয়। তারা জীবনী নিজেদের লক্ষ্য স্থির করতে পারে এবং ওই লক্ষ্য পূরণের জন্য সচেষ্ট হয়।

নভেম্বর- নভেম্বর মাসে জন্ম গ্রহণকারী মানুষেরা যথেষ্ট সংবেদনশীল হয়। তারা যেকোন মানুষের সঙ্গে মিলে মিশে যেতে পারে।

ডিসেম্বর- যারা ডিসেম্বরে জন্মায় বৈজ্ঞানিকরা বলেন তাদের নাকি হাঁপানি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। ডিসেম্বর মাসটায় ঠান্ডার আধিক্য বেশি থাকে তাই এই সমস্ত জাতক-জাতিকাদের হাঁপানি হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। এছাড়াও এই জাতক-জাতিকারা বেশ নির্ভীক প্রকৃতির মানুষ হয়।