ফার্মের মুরগি মানব শরীরের জন্য ভয়ঙ্কর বিষ? দেখে নিন

8
ফার্মের মুরগি মানব শরীরের জন্য ভয়ঙ্কর বিষ? দেখে নিন

মানবদেহে প্রোটিনে চাহিদা পূরণে দেশীয় ফার্মের মুরগি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তবে জানেন কি ফার্মের মুরগির ক্ষেত্রে মুরগি প্রতিপালনের সময় যে খাবার মুরগীদের প্রদান করা হচ্ছে, তা কার্যত মানব শরীরের জন্য ভয়ঙ্কর বিষ? চামড়ার উচ্ছিষ্ট আবর্জনা, ট্যানারিতে চামড়া প্রক্রিয়াজাত করতে ব্যবহৃত ক্রোমিয়াম থাকছে মুরগির খাবারে। যা মানব শরীরে প্রবেশ করলে ভয়ঙ্কর বিষক্রিয়া হয়।

এছাড়াও মুরগিকে দেওয়া হচ্ছে উচ্চ মাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক। তাও মানুষের শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর। মানুষের শরীরে ক্রোমিয়াম প্রবেশ করলে মানুষের শরীরের কোশ নষ্ট করে দেয়। এই কোশের আশেপাশে থাকা অন্যান্য কোশও এতে নষ্ট হয়ে যায়। চিকিৎসা্য পরিভাষায় তাকে বলা হয় ক্যান্সার। অর্থাৎ আমরা আমাদের অজান্তেই ক্যান্সারের বিষ আমাদের শরীরে প্রবেশ করিয়ে চলেছি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ডঃ আবুল হোসেন একটি গবেষণা থেকে বিস্ফোরক তথ্য তুলে ধরলেন। তিনি পরীক্ষা করে দেখেছেন মুরগির রক্তে 790 মাইক্রো গ্রাম মত ক্রোমিয়াম পাওয়া যাচ্ছে। মাংসে 350 মাইক্রোগ্রাম ক্রোমিয়াম রয়েছে। এছাড়াও হাড়ে 2000 মাইক্রোগ্রাম ক্রোমিয়াম পাওয়া গিয়েছে। কলিজায় 612 মাইক্রো গ্রাম ক্রোমিয়াম থাকে।

ওই গবেষণা রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে মুরগির মগজে 4500 কুড়ি মাইক্রো গ্রাম ক্রোমিয়াম রয়েছে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ দৈনিক খাবারের সঙ্গে সাধারণত সর্বোচ্চ 35 মাইক্রো গ্রাম ক্রোমিয়াম খেতে পারেন। সেই জায়গায় গড়ে 90 থেকে 97 মাইক্রোগ্রাম ক্রোমিয়াম চলে যাচ্ছে শরীরে মুরগির মাংস মারফত। যা স্বভাবতই স্বাস্থ্যের পক্ষে উদ্বেগজনক।