মনখারাপ হলে সকলেরই কান্না পায়! জানেন কি কান্নারও উপকারিতা আছে? দেখে নিন

9
মনখারাপ হলে সকলেরই কান্না পায়! জানেন কি কান্নারও উপকারিতা আছে? দেখে নিন

মনখারাপ হলে সকলেরই কান্না পায়। এটাই তো স্বাভাবিক। তাই তখন কান্না না চেপে মন হালকা করার জন্য কেঁদে নেওয়াই শ্রেয়। কিন্তু কান্না যে মন হালকা করার পাশাপাশি আরও অনেক উপকারে লাগতে পারে তা জানা আছে কি আপনার? নিশ্চয়ই না! কান্না শরীরের উপর অনেক ভালো প্রভাব ফেলে।

শরীর থেকে মেদ ঝরানোর জন্য কতজন কত কিই না করে! তবুও সকলে পারেন কি? তাহলে আর চিন্তা নেই। এই কাজটিই খুব সহজেই করতে পারে মন হালকা করা কান্না। হ্যাঁ, ঠিকই শুনছেন। মেদ ঝরাতে দারুণভাবে কাজে লাগে এই ক্রিয়াটি। বিশেষ করে সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টার মধ্যে কাঁদলে অনেকটা ওজন সাথে সাথেই কমে যেতে পারে। এটা পরীক্ষিত সত্য।

সম্প্রতি উইলিয়াম ফ্রে নামে এক চিকিৎসা বিজ্ঞানী দেখিয়েছেন, কাঁদলে কোর্টিসোল নামে এক হরমোন প্রচুর পরিমাণে নিঃসৃত হয়। এই হরমোন মেদ কমাতে সাহায্য করে। তাছাড়া কাঁদার কারণে শরীর থেকে প্রচুর টক্সিনও বেরিয়ে যায়। সেটিও ওজন কমাতে প্রচুর মাত্রায় সাহায্য করে।

কাঁদলে ওজন কমার আরও একটি কারণ আছে। আমরা যখন সাধারণ অবস্থায় থাকি, তখন আমাদের কার্ডিয়াক পেশিগুলি ঘণ্টায় প্রায় সাড়ে আট ক্যালোরি খরচ করে। কিন্তু কাঁদার সময়ে আমাদের হৃৎস্পন্দন বেড়ে যায় এবং অনেক বেশি ক্যালোরি খরচ হয়। আর তাতেই মেদ কমে।

কিন্তু শুধু সন্ধ্যাবেলার কথাই কেন বলা হয়েছে? দিনের অন্য সময়ের সাথে সন্ধ্যাবেলার কাঁদার কি পার্থক্য? অন্য সময়ে এই ক্রিয়া কি ওজন কমাতে পারবে না? উইলিয়াম ফ্রে বলছেন, সন্ধ্যায় কাঁদলে কোর্টিসোলের ক্ষরণের মাত্রা সবচেয়ে বেশি হয়। তাই ওজন কমে সবচেয়ে বেশি। তাই কান্না পেলে নিজেকে আটকাবেন না। কারণ এতে মন হালকা তো হয়ই, পাশাপাশি আপনি ওজন কমিয়ে হয়ে উঠতে পারেন স্লিম।