দেশের প্রত্যেকটি থানা, সিবিআই, এনআইএ এবং ইডির সিসিটিভি ক্যামেরা থাকা বাধ্যতামূলকঃ সুপ্রিম কোর্ট

15
দেশের প্রত্যেকটি থানা, সিবিআই, এনআইএ এবং ইডির সিসিটিভি ক্যামেরা থাকা বাধ্যতামূলকঃ সুপ্রিম কোর্ট

সিবিআই, এনআইএ এবং ইডির হেফাজতে অভিযুক্তদের উপর তদন্তকারী আধিকারিকদের অত্যাচার রুখতে এবার এক অভিনব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলো সুপ্রিম কোর্ট। উচ্চ আদালতের তরফ থেকে সম্প্রতি একটি রায় প্রদান করে জানানো হলো, দেশের প্রত্যেকটি থানা, সিবিআই, এনআইএ এবং ইডির ডাক্তারের সিসিটিভি ক্যামেরা থাকা বাধ্যতামূলক। ক্যামেরার সামনেই সন্দেহভাজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে।

শুধু তাই নয়, সিসিটিভি ক্যামেরা ছাড়াও জেরা করার সময় অডিও রেকর্ডিংও রাখার নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। লকআপ এবং জেরা করার ঘরে নাইট ভিশন ক্যামেরা এবং অডিও রেকর্ডিং এর ব্যবস্থা করতে হবে। পাশাপাশি সিসিটিভি ক্যামেরাও রাখতে হবে। শীর্ষ আদালতের নির্দেশ, সিসিটিভি ক্যামেরা গুলিকে এমন ভাবে স্থাপন করতে হবে যাতে লক আপ, ইন্টারোগেশন রুম, তদন্তকারী আধিকারিকদের দপ্তরে প্রত্যেকের ঢোকা এবং বেরোনোর উপর নজর রাখা যায়।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি পাঞ্জাবে জেল হেফাজতে অত্যাচারের মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এমন রায় প্রদান করেছে শীর্ষ আদালত। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুসারে এন আই এ, সি বি আই, ইডি, পুলিশ থানার প্রবেশ-প্রস্থান পথ, লক আপ, করিডোর, লবি, রিসেপশন এলাকা, ইন্সপেক্টর, সাব-ইন্সপেক্টরদের ঘর এবং শৌচাগারের বাইরে সিসিটিভি ক্যামেরা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নার্কোটিক্স ব্যুরো, ডিরেক্টরেট অফ রেভেনিউ ইন্টেলিজেন্স এবং সিরিয়াস ফ্রড ইনভেস্টিগেশনের দপ্তরেও সিসিটিভি ক্যামেরা লাগাতে হবে।

প্রতিটি ভিডিও এবং অডিও ১৮ মাস সংরক্ষণ করতে হবে। তদন্তকারী আধিকারিকদের হেফাজতে সন্দেহভাজনদের মানবাধিকার কোনোভাবে লঙ্ঘিত হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নজর রাখবে নিরাপেক্ষ সংস্থা গুলি। আগামী ২৭শে জানুয়ারি এই মামলার পুনরায় শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।