চাকরি চলে গেলেও এবার পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে পারবেন কর্মচারীরা

9
চাকরি চলে গেলেও এবার পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে পারবেন কর্মচারীরা

চাকরি করতে করতে যদি হঠাৎ করেই চাকরি চলে যায় তা হলেও পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে পারবেন কর্মচারীরা। ইপিএফও এর তরফ থেকে সম্প্রতি এই মর্মে একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে। টুইটার মারফত ইপিএফও কর্মচারীদের এই পরিষেবার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছে। চাকরি চলে গেলেও পিএফ একাউন্ট থেকে অগ্রিম টাকা নেওয়া যাবে। এই টাকা ফেরত দেওয়ার দরকার নেই।

ইপিএফও বা পিএফ হল একটি সরকারি স্কিম। সরকারি বা বেসরকারি বেতনভুক কর্মীদের বেতন থেকে কেটে নেওয়া হয় টাকা। ইপিএফও ফান্ডে জমা হয় সেই টাকা। কর্মী ও সংস্থা দু’পক্ষকেই ১০ শতাংশ করে টাকা প্রতি মাসে এই ফান্ডে জমা করতে হয়। আগে অবশ্য বেসরকারি সংস্থাগুলির ক্ষেত্রে বেতনের ১২ শতাংশ জমা রাখতে হতো। পরে অবশ্য তা কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। প্রতি মাসে পিএফ অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দিতে হয়।

চাকরি ছেড়ে দিলে বা অবসর গ্রহণের পর এই টাকা তুলতে পারেন কর্মচারীরা। ইপিএফও সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে এবার থেকে চাকরি চলে গেলেও কর্মচারীরা অগ্রিম টাকা তুলতে পারবেন এবং সেই টাকা ফেরত যোগ্য নয়। কোনও কর্মী যদি এক মাস বা তারও বেশি সময় বেকার থাকেন, তাহলে তিনি পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে ৭৫ শতাংশ টাকা অগ্রিম তুলে নিতে পারবেন। চাকরি চলে গেলেও তাদের পিএফ একাউন্ট বন্ধ হবে না। তাই তারা এই সুযোগ পাবেন।

বেকার থাকাকালীন ওই অগ্রিম টাকা আর্থিক সহায়তা পাবেন কর্মচারীর পরিবার। এই অগ্রিম টাকা নেওয়ার জন্য প্রথমে আবেদন করতে হয়। আবেদনের জন্য কর্মীকে ইউএএন নম্বর ব্যবহার করে আবেদন করতে হবে। এর জন্য অবশ্যই আধার কার্ড, প্যান কার্ড ও মোবাইল নম্বর ওই ইউএএন নম্বরের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে। পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে অগ্রিম চেয়ে আবেদন পত্র পাঠাতে হবে কমিশনারকে।

এই আবেদন পত্র অনলাইনে জমা করতে পারেন অথবা সরাসরি অফিসে গিয়ে হার্ড কপি জমা দিতে পারেন। অনলাইনে আবেদন করতে হলে epfindia.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে। এভাবে আপদকালীন সময়ে প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা ব্যবহার করতে পারবেন সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থার কর্মচারীরা।