রোগী ভর্তির দুদিন পরেও যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আওতায় সুবিধা দিতে হবেঃ রাজ্য সরকার

2
রোগী ভর্তির দুদিন পরেও যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আওতায় সুবিধা দিতে হবেঃ রাজ্য সরকার

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে সাধারণের ভোগান্তির শেষ নেই। এমতাবস্থায় রাজ্যের প্রতিটি মানুষ যাতে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখিয়ে উপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা পান তার জন্য জোরদার ব্যবস্থা এনেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রক। রোগীদের তরফ থেকে বারংবার এই অভিযোগ আনা হচ্ছে যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখানোর পরেও সরকারি অথবা বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে না। এই অভিযোগ দূর করতে এবার স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কমিশনের তরফ থেকে কড়া বার্তা দেওয়া হলো দেশের হাসপাতালগুলোকে।

এই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে যে ভর্তির পর রোগী যখনই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখাবেন তখনই তাকে সেই কার্ডের সুবিধা দিতে হবে। এও জানানো হয়েছে যে, রোগী যদি দুদিন পরে ও স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখান তাহলে দুদিন পর থেকেই তাকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আওতায় সুবিধা দিতে হবে। রাজ্য স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কমিশনের চেয়ারম্যান তথা প্রাক্তন বিচারপতি অসীম কুমার বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, রোগীর পরিবারের তরফ থেকে যেদিন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখানো হবে সেদিনই তা গ্রহণ করতে হবে। কার্ড ফেরানো যাবে না।

প্রসঙ্গত স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ঘিরে দেশের হাসপাতালগুলিতে যে অরাজকতা সৃষ্টি হয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার। এও জানানো হয়েছে যে আঙ্গুলের ছাপ না মিললেও অন্য উপায়ে কার্ড খতিয়ে দেখে পরিষেবা দিতে হবে। গত মঙ্গলবার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে একাধিক বেসরকারি হাসপাতালে সঙ্গে কথা বলেন কমিশনের কর্তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এই বৈঠকের পর কমিশনের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন ব্যক্তিগতভাবে চারটি হাসপাতালে সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে। এই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কথা দিয়েছে যে এই নিয়ে আর কোনো অসুবিধা হবে না। একটি হাসপাতালে পরিকাঠামোগত কিছু ত্রুটি রয়েছে। তবে সেই ত্রুটি দ্রুত মিটিয়ে নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।