এক কথা বলতে বলতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে পরিবেশবিদেরা

8
এক কথা বলতে বলতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে পরিবেশবিদেরা

মানুষ নিজের স্বার্থ সিদ্ধি করার জন্য প্রকৃতিকে নিষ্ঠুর ভাবে ধ্বংস করার জন্য উঠেপরে লেগেছে। কিন্তু এই প্রকৃতি যে নিজের ভয়ানক রূপ ধারণ করবে আগামীতে, আর তাঁর জন্য যে ক্ষতির মুখোমুখি হতে হবে পুরো মানব জাতিকে, সেটা কল্পনার অতীত। বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় হয়ে চলে প্রকৃতির ওপর ধ্বংসলীলা যা বিঘ্নিত করছে পরিবেশকে। তৈরী হচ্ছে গ্রীন হাউজ গ্যাস, বেড়ে যাচ্ছে পৃথিবীর তাপমাত্রা।

গলে যাচ্ছে হিমবাহ, এতে আবার বৃদ্ধি পাচ্ছে সমুদ্রের জল স্তর। খরা অনাবৃষ্টির কথা নতুন করে আর কি বলব। অবাধে কেটে নেওয়া হচ্ছে বন জঙ্গল। উন্নত সমাজ গড়ে তোলার জন্য নষ্ট করে ফেলা হচ্ছে প্রকৃতিকে। কিন্তু এতে লাভের থেকে ক্ষতিই হচ্ছে বেশী। ইতিমধ্যেই পরিবেশবিদেরা এক কথা বলতে বলতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। বিশ্ব উষ্ণায়ণ কিসের জন্য হচ্ছে? একটা সময় এত চরম গরমের মুখোমুখি হতে হত না, এখন যার সম্মুখীন হচ্ছে মানুষ। শুধু কি মাটির ওপরেই এই ধ্বংস লীলা চলছে তোমার মনে হয়? আজ্ঞে না, সমুদ্রের মধ্যে চলছে এই ধ্বংসলীলা। যার কারণে একেবারে শেষ হয়ে যেতে পারে সমুদ্রের ভারসাম্য ও সমুদ্রজগত।

মেরিন ডায়ভারসিটি নষ্ট হয়ে যাওয়া, যা সমুদ্র জগতকে একটা ধবংলীলার মুখে দাড় করিয়ে দিচ্ছে। গ্লোবাল ওশেন ওয়ার্ম বাঁ মেরুপ্রদেশের বরফ গলে যাওয়া এই সমস্ত সমুদ্র জগতকে ক্রমশ ধবংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাই বিজ্ঞানীরা দারুণ চিন্তায় কারণ এই বিপর্যয় এতটাই কাছে যেটা দেখা দিতে পারে ২১০০ সালের মধ্যেই।