অধঃস্তন কর্মচারীর উপর জোর জুলুম ঊর্ধ্বস্তন অফিসারের! ভাইরাল অডিও

10
অধঃস্তন কর্মচারীর উপর জোর জুলুম ঊর্ধ্বস্তন অফিসারের! ভাইরাল অডিও

যে রক্ষক সেই কিনা ভক্ষক! চুরি, ডাকাতি, রাহাজানি অথবা গুন্ডাগিরির কবলে পড়লে সাধারণ মানুষ বিচারের আশায় পুলিশের কাছেই ছুটে যান। তবে সেই পুলিশই যদি অত্যাচারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়, তাহলে সাধারণ মানুষের যাওয়ার পথ কোথায়? সম্প্রতি এই প্রশ্নেরই জন্ম দিলো মহারাষ্ট্রের একটি ঘটনা। মহারাষ্ট্রের একজন আইপিএস অফিসারের জোর জুলুমে অতিষ্ঠ তার অধঃস্তন কর্মচারীরা। বিনামূল্যে বিরিয়ানি তাকে এনে দিতেই হবে!

ওই আইপিএস অফিসার যে থানার ইনচার্জ রয়েছেন, সেই থানার অন্তর্গত এলাকাতেই রয়েছে একটি বিরিয়ানির দোকান। সেই বিরিয়ানির দোকান থেকে স্বামীর জন্য মটন এবং চিকেন বিরিয়ানি তাকে এনে দিতেই হবে! তবে তার জন্য তিনি একটি পয়সাও খরচ করবেন না। এমনই এক অদ্ভুত দাবি নিয়ে তিনি তার অধঃস্তন কর্মচারীর উপর জোর দিতে থাকেন। ফোন মারফত রীতিমতো জোরজবরদস্তি করতে থাকেন তিনি।

সম্প্রতি এই সংক্রান্ত একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়ে গিয়েছে নেট দুনিয়ায়। সেখানে তাকে স্পষ্ট বলতে শোনা যাচ্ছে, তার এলাকায় বিরিয়ানির দোকান থেকে বিরিয়ানি কিনলে তাকে কেন টাকা দিতে হবে? পাশাপাশি তিনি তার অধঃস্তন কর্মচারীকে বিষয়টি সামলে নেওয়ার নির্দেশ দেন। নতুবা অন্য কাউকে দায়িত্ব দেওয়ার কথাও বলেন। এই অডিও ক্লিপটি ফাঁস হয়ে যেতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন।

ঘটনা প্রসঙ্গে মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পুণের পুলিশ কমিশনারকে বিষয়টির তদন্তের নির্দেশ দেন। মহারাষ্ট্র স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছেন। একইসঙ্গে বিষয়টি নিয়ে উপযুক্ত তদন্ত হবে বলেও তিনি আশ্বস্ত করেছেন। যদিও এই সম্পর্কে অভিযুক্ত ওই মহিলা আইপিএসের দাবি, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।