কমতে চলেছে ভোজ্যতেলের দাম! সম্প্রতি এমনটাই জানালেন ফুড সেক্রেটারি সুধাংশু পান্ডে

12
কমতে চলেছে ভোজ্যতেলের দাম! সম্প্রতি এমনটাই জানালেন ফুড সেক্রেটারি সুধাংশু পান্ডে

করণা পরবর্তী সময়ে পেট্রোল, ডিজেল থেকে শুরু করে রান্নার গ্যাসের দাম দ্রুত বাড়ছে। এমতাবস্থায় হেঁসেল সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে মধ্যবিত্ত। তার উপর আবার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া। দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় শাকসবজি থেকে শুরু করে দোকানজাত খাদ্যদ্রব্যের দাম ধীরে ধীরে সাধারণের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। যার মধ্যে সর্বাধিক বৃদ্ধি পেয়েছে ভোজ্যতেলের দাম। ভোজ্যতেলের দাম বিগত এক বছরে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রায় ৬০ শতাংশের বেশি বেড়েছে।

তবে এবার অবশ্য আশার আলো দেখছেন সাধারন মানুষ। কারণ নতুন তৈলবীজ জাতীয় ফলন ও আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম সস্তা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ফুড সেক্রেটারি সুধাংশু পান্ডে মনে করছেন ভোজ্যতেলের দাম এবার কমতে পারে। দেশে প্রয়োজনীয় ভোজ্য তেলের ৬০ শতাংশ আমদানি করা হয়। বিগত এক বছরে ৬৪ শতাংশ বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। যার ফলে সাধারণ মানুষের মাথায় হাত পড়েছে।

ফুড সেক্রেটারি সুধাংশু পান্ডে অবশ্য জানিয়েছেন ভোজ্যতেলের দাম কমলেও নাটকীয় ভাবে অতি দ্রুত কমবে এমনটা মনে করার কোনো কারণ নেই। তৈলবীজ জাতীয় ফসল বাজারে এলে ও আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলেই ভোজ্য তেলের দাম কমবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তিনি আরো জানিয়েছেন বর্তমানে বেশ কয়েকটি দেশ তাদের নিজস্ব সম্পদ ব্যবহার করে বায়োফুয়েল নীতিতে জোর দিয়েছে। পাইকারি ও খুচরো বাজারে তাই তেলের দাম বেড়েছে।

মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া ভারতে প্রচুর পাম তেল সরবরাহ করে। তবে বায়ো ফুয়েল নীতিতে জোর দেওয়ার কারণে এখন তারা রপ্তানিতে রাশ টেনেছে। আমেরিকাতেও একই ঘটনা দেখা যাচ্ছে। পাম তেল এবং সয়াবিন তেলের বেশি অংশটাই বিদেশ থেকে আমদানি করে ভারত। তেলের জোগান কম থাকায় ও বৈদেশিক বাজারে দাম বৃদ্ধির কারণে ভারতবর্ষে তেলের দাম বাড়ছে।

এমতাবস্থায় তেলের দাম কমানোর জন্য কেন্দ্র আমদানি শুল্ক কমানো সহ বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলে তিনি জানিয়েছেন। সয়াবিন তেলের খুচরো দাম ৫১.২১ শতাংশ বৃদ্ধি হয়েছে। একইভাবে পাম তেলের দাম ৬৪ শতাংশ বেড়েছে। সূর্যমুখী তেলের দাম বেড়েছে ৪৬ শতাংশ। ভারতে সর্ষের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে ঠিকই তবে চাহিদা বেশি থাকায় দাম বেড়েছে।