ওজোন কমাতে খান ওটমিল! তার আগে জেনে নিন খাওয়ার সঠিক নিয়ম

5
ওজোন কমাতে খান ওটমিল! তার আগে জেনে নিন খাওয়ার সঠিক নিয়ম

ওটমিল স্বাস্থ্যকর হলেও সেটার মধ্যে খাওয়ার পদ্ধতি তে কিছু ভুল ত্রুটি থাকে যেগুলো শরীরের পক্ষে অস্বাস্থ্যকর। ওটমিল পুরনো একটি খাদ্য যেটা অনেকেই স্বাস্থ্যকর বলে মনে করেন এবং যেটা খেলে পেট ভরা থাকে অনেকক্ষণ। সেই ক্ষেত্রে যারা ওজন কমাতে চান তারাই এটিকে খেয়ে থাকেন কিন্তু এটা সকলেরই অজানা যে এই ওটমিলের যদি অপব্যবহার করা হয় অর্থাৎ যদি কোনরকম নিয়ম না মেনে খাওয়া হয় তাহলে এটি ওজন কমানোর জায়গায় ওজন বাড়িয়ে দেবে।

স্বাস্থ্য সম্পর্কিত একটি ওয়েবসাইট যেখানে বলা হয়েছে যে ওটমিল খাওয়ার অভ্যাসকে ত্যাগ করা উচিত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ওটমিলে থাকে প্রোটিন। এই ওটমিল যদি এক চামচ খাওয়া হয় তাতে প্রায় তিন গ্রাম চর্বি থাকে এবং কার্বোহাইড্রেট থাকে ২৭ গ্রাম চিনি থাকে প্রায় ১ গ্রাম ৩৫ গ্রাম। এই ওটমিল প্রায় ১৫০ গ্রাম ক্যালোরি গ্রহণ করার ক্ষমতাকে কমিয়ে দেবে।

এই ওটমিল নিয়মিত খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যাবে চর্বি। ওটমিলের যদি ১ চামচ যেকোনো বাদামের মাখন মেশানো হয় তাহলে যেমন স্বাদ বাড়বে তেমনি এটা সঙ্গে আরও প্রোটিনের মাত্রাও বেড়ে যাবে চার গ্রাম। তাই আপনি যখন প্যাকেটের ওটমিল কিনবেন তখন তার আগে আপনার ভালো করে জেনে নিতে হবে যে ইনস্ট্যান্ট ওটমিলে অনেক রকম কৃত্রিম উপকরণ থাকে, যা আপনার স্বাস্থ্যকে অস্বাস্থ্যকর স্বাস্থ্যে পরিণত করতে পারে।

এছাড়া ইনস্ট্যান্ট ওটমিলে থাকে প্রায় ১৪ গ্রাম চিনি। তাই সব সময় কোনরকম ইনস্ট্যান্ট ওটমিল কেনা উচিত নয়। যেই ওটস গুলিতে কোনরকম ফ্লেভার থাকে না থাকে না সেগুলো কেনা উচিত। আপনি যদি ওটমিলের সঙ্গে চিনি মেশান তাহলে প্রায় ৫০ ক্যালোরি ওটমিলের সঙ্গে যুক্ত হবে আবার যদি কোন সময় ওটমিলের সঙ্গে ম্যাপল সিরাপ মিশিয়ে খাওয়া হয় তবে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ অনেক বেড়ে যাবে এবং যার ফলে সেটি পেটে গেলে শর্করার পরিমাণ বাড়িয়ে দেবে। ওটমিলে যদি মিষ্টি ভাবটা আনতে হয় তাহলে চিনির পরিবর্তে মধু ব্যবহার করা যেতে পারে।