উৎসবের মুহুর্তে দেশবাসীকে ব্যবসায়ে অনুপ্রাণিত করতে “মুদ্রা প্রকল্প” নিয়ে এল কেন্দ্র সরকার

19
উৎসবের মুহুর্তে দেশবাসীকে ব্যবসায়ে অনুপ্রাণিত করতে

ব্যবসায়ীদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ প্রদান করছে ভারত সরকারের “মুদ্রা প্রকল্প”। এই প্রকল্পের আওতায় ঋণ নিয়ে বিস্কুটের ব্যবসা করে লাখপতি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। উৎসবের মুহুর্তে দেশবাসীকে ব্যবসায়ী অনুপ্রাণিত করতে এই বিশেষ সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। কেক, বিস্কুট, চিপস, পাউরুটি প্রস্তুতির ইউনিট গড়ে তোলার জন্য সহজেই কেন্দ্রীয় মুদ্রা প্রকল্পে ঋণ পাওয়া যায়।

বিস্কুট একটি এমন খাদ্যদ্রব্য, যার চাহিদা কখনো ফুরায় না। অর্থাৎ, এই ব্যবসায় লাভ বৈ লোকসান নেই। তাই ব্যবসা করতে ইচ্ছুক ব্যক্তিরা অনায়াসেই বিস্কুট শিল্পে বিনিয়োগ করতে পারেন। এক লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। যে টাকা অনায়াসেই কেন্দ্রের কাছ থেকে ঋণ নিতে পারেন ইচ্ছুক ব্যাক্তি। বিস্কুট প্রস্তুতির কাঁচামাল, বেকারি শ্রমিকদের বেতন, ভাড়া বাবদ খরচ পড়বে ১.৮৬ লক্ষ টাকা।

এছাড়াও বেকারিতে প্রয়োজনীয় মেশিন খরচ বাবদ ৩.৫ লক্ষ টাকা খরচ হবে। অর্থাৎ স্টার্টিং এ খরচ হবে ৫.৩৬ লক্ষ টাকা। যার মধ্যে থেকে ব্যবসায়ীকে মাত্র ৯০ হাজার টাকা দিতে হবে। বাকি টাকাটা টার্ম লোন এবং ব্যাংকিং ক্যাপিটাল টার্মের ভিত্তিতে কেন্দ্রের তরফ থেকে ঋণ হিসেবে দেওয়া হবে। এক বছরে প্রোডাকশন খরচ বাবদ আনুমানিক ১৪.২৬ লক্ষ টাকা খরচ হবে।

টার্নওভার থাকবে ২০.৩৮ লক্ষ টাকা। ফলে মোট লাভ হবে ৬.১২ লক্ষ টাকা। এর মধ্যে থেকে ঋণের জন্য সুদ বাবদ ৫০ হাজার টাকা, আয়কর বাবদ ১৩-১৫ হাজার টাকা এবং অন্যান্য খরচ বাবদ ৭০-৭৫ হাজার টাকা বাদ দিয়েও নীট ৪.৬০ লক্ষ টাকা হাতে থাকবে। অর্থাৎ মাসে প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা আয়ের সম্ভাবনা আছে। বছরে ৩৮ শতাংশ হিসেবে দেড় বছরেই বিনিয়োগের টাকা পুরোপুরি উঠে আসবে।