মুখ্যমন্ত্রীর উদাসীনতার কারণেই বাংলার কৃষকেরা কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকে বঞ্চিত! ফের কটাক্ষ রাজ্যপালের

4
মুখ্যমন্ত্রীর উদাসীনতার কারণেই বাংলার কৃষকেরা কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকে বঞ্চিত! ফের কটাক্ষ রাজ্যপালের

কেন্দ্রীয় সাহায্য, সুযোগ-সুবিধা, পরিষেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের সাধারণমানুষ, বঙ্গ-বিজেপির তরফ থেকে এমন অভিযোগ বহুবার উঠেছে। এবং এর জন্য তারা সরাসরি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করেছেন। বিজেপির দাবি, রাজ্য সরকার রাজনীতি করতে গিয়ে রাজ্যবাসীকে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাখছেন। এবার মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সেই একই অভিযোগ তুললেন রাজ্যের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে রাজ্য সরকার এবং রাজ্যপালের মধ্যে বিবাদ নতুন কিছু নয়। ইতিপূর্বে বহু বিষয় নিয়েই তারা একে অপরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। চলতি নভেম্বর মাসে দার্জিলিংয়ে ছুটি কাটাচ্ছেন রাজ্যপাল। সেখান থেকেই মমতা ব্যানার্জির উদ্দেশ্যে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন তিনি। এদিন একটি টুইট বার্তায় রাজ্যপাল লিখেছেন, কেবলমাত্র মুখ্যমন্ত্রীর উদাসীনতার কারণেই এ রাজ্যের কৃষকেরা কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে তাদের প্রাপ্য ১২০০০ টাকা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন।

রাজ্যপাল টুইটারে লিখেছেন, পশ্চিমবঙ্গ বাদে দেশের অন্যান্য সকল রাজ্যের কৃষকেরা সরাসরি নিজের একাউন্টে ১২০০০ টাকা পেয়ে গিয়েছেন। প্রশাসনের উদাসীনতার কারণেই এ রাজ্যের প্রায় ৮৪০০ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। রাজ্যপাল জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের এহেন লোকসানে তার অন্তর ব্যথিত। মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও এদিন তিনি তার টুইট বার্তায় রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং ডিজিপিকে নিশানা করেছেন।

তার অভিযোগ, মমতা সরকারের আমলে রাজ্য পুলিশ নিয়ম ভাঙছে‌। রাজ্যপালের অভিযোগ, এ রাজ্যের পুলিশ নিজেদের আইনের ঊর্ধ্বে বলে মনে করছে। যার ফল অতি মারাত্মক হতে পারে। উল্লেখ্য, রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে এর আগে বহুবার মন্তব্য প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল। রাজ্যপালের এহেন মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য শাসকদলের দাবি, নিজের আওতা বহির্ভূত ক্ষেত্রে মন্তব্য করছেন রাজ্যপাল।