শত্রুর বিরুদ্ধে শক্তি বৃদ্ধি করতে ৪০ দিনের মধ্যে দশটি শক্তিশালী মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল ডিআরডিও

6
শত্রুর বিরুদ্ধে শক্তি বৃদ্ধি করতে ৪০ দিনের মধ্যে দশটি শক্তিশালী মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল ডিআরডিও

একের পর এক মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করে চলেছে ভারত। সুপারসনিক মিসাইল ব্রহ্মসের পর এবার সোমবার ডিফেন্স রিসার্চ ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন তথা ডিআরডিও এর তরফ থেকে বঙ্গোপসাগরের উপকণ্ঠে ওড়িশার উপকূল থেকে প্রভূত শক্তিশালী স্ট্যান্ড অফ অ্যান্টি ট্যাংক মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করা হলো। লাদাখের ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষের আবহে শক্তিশালী মিসাইল উৎক্ষেপণে ভারতের এই সফলতা নিঃসন্দেহে ভারতীয় প্রতিরক্ষা দপ্তরকে আরো মজবুত করে তুলছে।

সীমান্ত সংঘর্ষের আবহে একের পর এক মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করে শত্রু পক্ষের বিরুদ্ধে কার্যত নিজেদের শক্তি বৃদ্ধি করছে ভারত। রুদ্রম, শৌর্য, ব্রহ্মসের পর ভারতীয় সেনাবাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি করতে এলো স্ট্যান্ড অফ অ্যান্টি ট্যাংক মিসাইল। মাত্র ৪০ দিনের মধ্যেই দশটি শক্তিশালী মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করতে সমর্থ হয়েছে ডিআরডিও।

ডিআরডিও এর কর্মকর্তা সতীশ রেড্ডির দাবি, মিসাইল উৎক্ষেপণ নিয়ে যেভাবে অনবরত সফলতার মুখ দেখে চলেছে ভারত. সেই প্রেক্ষাপটে অদূর ভবিষ্যতে ভারতে মিসাইল নির্মাণের নতুন যুগ আসবে। উল্লেখ্য, রবিবার আরব সাগরে আইএনএস চেন্নাই যুদ্ধজাহাজ থেকে “ব্রহ্মস” মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করা হয়। জলপথে শত্রুর মোকাবিলা করতে ব্রহ্মসের জুড়ি মেলা ভার।

এছাড়াও ভারতের শক্তিশালী মিসাইলের লিস্টে রয়েছে অ্যান্টি রেডিয়েশন মিসাইল “রুদ্রম”। যুদ্ধবিমান থেকে এই মিসাইল উৎক্ষেপণ করতে হয়। মিসাইল থেকে যে রেডিয়েশন ছড়াবে তা শত্রুকে প্রতিহত করবে।