বিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের চূড়ান্ত নকশা তৈরি করলো ডিআরডিও

12
বিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের চূড়ান্ত নকশা তৈরি করলো ডিআরডিও

এবার দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি জাহাজ বিধ্বংসী ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের দ্বারা শত্রুকে পরাস্ত করবে ভারত। ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন তথা ডিআরডিও এরকম একটি বিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের নকশা চূড়ান্ত করে ফেলেছে। এবার কেন্দ্রীয় সরকারের সবুজ সংকেত মিললেই এর নির্মাণ এবং পরীক্ষার কাজ শুরু হবে।

প্রায় ১৫শ কিলোমিটার পাল্লা বিশিষ্ট এই জাহাজ বিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির কাজ শেষ হলে ভারতের উপকূলীয় অঞ্চলের সুরক্ষা নিশ্চিত হবে। এই ক্ষেপণাস্ত্রের ভূমি থেকে ভূমি সংস্করণ লাদাখের উঁচু পাহাড়ি এলাকাতে নিরাপত্তা মোতায়েন করতে পারবে। দু বছর আগে পাকিস্তান নিয়ে নৌসেনার হাতে অত্যাধুনিক যুদ্ধ জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সিএম 302 তুলে দিয়েছে চীন।

এবার ভারতের এই পদক্ষেপ এই পরিস্থিতিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে অনুমান করা হচ্ছে। রাশিয়া সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে শব্দের থেকেও বেশি দ্রুতগামী ব্রহ্মস ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে ভারতের হাতে। এটি শব্দের থেকে প্রায় ২.৮ গুণ বেশি দ্রুত হারে ছুটতে পারে। এর পাল্লা প্রথমে ২৯০ কিলোমিটার রাখা হয়েছিল। আন্তর্জাতিক প্রযুক্তিগত বিধি নিষেধের কারণে সীমারেখা তৈরি করা হয়।

২০১৬ সালে ভারত মিসাইল টেকনোলজি কন্ট্রোলের অন্তর্ভুক্ত সদস্য হওয়ার পর থেকেই এই ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা বাড়ানো হয়। বর্তমানে ক্ষেপণাস্ত্রের নতুন পাল্লা হয়েছে ৪৫০ কিলোমিটার। পাশাপাশি সুখ হয় ৩০ এর মত যুদ্ধবিমান থেকেও এই ব্রহ্মস ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া যাবে।