জানেন কি, দশমীর আগে কেন বিজয় শব্দটি ব্যবহার করা হয়? সিঁদুরই বা খেলা হয় কেন?

8
জানেন কি, দশমীর আগে কেন বিজয় শব্দটি ব্যবহার করা হয়? সিঁদুরই বা খেলা হয় কেন?

আসবো আসবো করে দুর্গাপূজা এসে চলে গেল। চার দিন যে কিভাবে আনন্দের সাথে মানুষ কাটিয়ে দিল, তা ভেবে অবাক হয়ে যাই। তবে সব থেকে কষ্টের দিন হল বিজয়াদশমী। আবার এক বছর অপেক্ষা করার জন্য আমাদের সকলকে ফেলে রেখে মা চলে গেলেন শ্বশুরবাড়ি। চোখের জলে বিদায় দিতে হলে মাকে। সিঁদুর খেলা, মাকে বরণ, মিষ্টি মুখ দিয়ে পালন করা হয় বিজয়াদশমী।

তবে বিজয়াদশমী এবং তার রীতিনীতিকে ঘিরে মানুষের মনে অনেক প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে থাকে। তার মধ্যে সবার আগে একটি প্রশ্ন আসে,”দশমীর আগে কেন বিজয় শব্দটি ব্যবহার করা হয়”? সিঁদুর খেলার গুরুত্ব কি? তাহলে আজকে জেনে নিন এই সমস্ত প্রশ্নের যথাযথ উত্তর।

বিজয়া শব্দ ব্যবহারের কারণ:

দুর্গাপুজোর শেষ আমরা চিহ্নিত করে বিজয় দশমীর মাধ্যমে। এই দশমী শব্দটির অর্থ কিন্তু খুবই সোজা। পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী, আশ্বিন মাসের শুক্লপক্ষের দশমী তিথিতে মা দুর্গা নিজেও গৃহ ছেড়ে চলে যান স্বামীগৃহে। ঠিক সেই কারণেই এই তিথিকে দশমী বলা হয়। কিন্তু দশমীর আগে বিজয় কথাটা বলা হয় কেন?

পুরানে মহিষাসুর বধ কাহিনী লেখা রয়েছে যে, মহিষাসুরের সঙ্গে মা দুর্গার নয় দিন নয় রাত্রি যুদ্ধ করার পর দশম দিনে তার বিরুদ্ধে জয়লাভ করেছিলেন দেবী। নারী শক্তি জয়লাভ কে বিজয় বলে আখ্যা দেওয়া হয়।

আবার শ্রী চন্ডী র কাহিনি অনুযায়ী, দেবী আবির্ভূত হন আশ্বিন মাসের কৃষ্ণ চতুর্থীতে এবং মহিষাসুরকে বধ করেছিলেন শুক্লা দশমীতে। তাই এই দিনটিকে আমরা বলে থাকি বিজয়াদশমী।

কেন সিঁদুর খেলা হয়?

বিজয়ের দিন সিঁদুর খেলা দুর্গাপুজোর একটি খুবই পরিচিত অনুষ্ঠান। এইদিন বাঙালি ঘরের প্রত্যেকটি বধু একে অপরকে সিঁদুর লাগিয়ে বিজয় দশমীর শুভেচ্ছা আদান প্রদান করেন অনেকেরই মনে প্রশ্ন জাগে যে, বর্তমানে নারীদের কাছে কেন বিজয়া দশমীর দিন এই খেলা এতটা গুরুত্বপূর্ণ?

হিন্দু বিবাহ রীতিতে সিঁদুর দান একটি লৌকিকতা মাত্র। কিন্তু সুপ্রাচীন কাল থেকেই প্রত্যেকটি বিবাহিত নারীরা স্বামীর কল্যাণের জন্য সিঁথিতে সিঁদুর পরেন। সিঁদুর কেউ খুব পবিত্র বলে মনে করা হয়। আর দেবী দুর্গা যেহেতু বিবাহিত,তাই বরণের সময় তাকে সিঁদুর পরিয়ে মিষ্টি মুখের মাধ্যমে অভিনন্দন জানানো হয় দুর্গাপূজা যে সমস্ত উপাচার দেবীকে দান করা হয়, তার অন্যতম হলো সিঁদুর।

আবার ভবিষ্য পুরাণ মতে, সিঁদুর ব্রম্ভ দেবতার প্রতীক। বিবাহিত নারীরা সিঁথিতে সিঁদুর পরেন পরম আহবান করার জন্য। মনে করা হয়, পরমব্রহ্ম সংসারের সমস্ত দুঃখ কষ্ট দূর করে দিয়ে সুখ দান করেন ভক্তদের। তাই দশমীর দিন সিঁদুর খেলা হয়ে থাকে।

বিসর্জন এর তাৎপর্য:

বিজয় দশমীর দিন দেবীর বিসর্জন করা হয়। সনাতন ধর্ম অনুযায়ী, মানুষের দেহ যেমন পঞ্চতত্ত্বের উপাদান দিয়ে তৈরি, তেমনি প্রতিমার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। তাই পুজো করা শেষে দেবীকে বিদায় দেবার সময় প্রতিমাটি প্রাণহীন হয়ে যায়। মূর্তিকে তাই পঞ্চতত্ত্বের একটি অর্থাৎ জলে বিসর্জন দিয়ে দেওয়া হয়। জলের মধ্যে প্রতিমা পুনরায় প্রকৃতিতে মিশে যায়। এই কারণেই দশমীর দিন বিসর্জন দেওয়া হয়ে থাকে।