জানেন কি চুল ভালো রাখতে কতবার শ্যাম্পু করা উচিৎ

11
জানেন কি চুল ভালো রাখতে কতবার শ্যাম্পু করা উচিৎ

আমাদের অনেক মেয়েদেরই সংশয় থাকে যে আসলে সপ্তাহে কতবার শ্যাম্পু করা আমাদের উচিত সেই বিষয়ে। ছোট থেকেই আমরা শুনে আসছি যে সপ্তাহে দুইবারের বেশি শ্যাম্পু করতে নেই তাহলে আমাদের চুলের মধ্যে যে প্রাকৃতিক তৈলাক্ত ভাব রয়েছে তা নষ্ট হয়ে যায়। সত্যিই কি তাই? চলুন এই বিষয়ে এবারে একটু আলোচনা করা যাক।

এই পৃথিবীতে প্রতিটা মানুষের থেকে প্রতিটা মানুষ আলাদা। ঠিক তেমনি আর পাঁচজনের চুলের থেকে আপনার চুল আলাদা রকমের। এছাড়াও পারিপার্শ্বিক অনেক কিছুর ওপরে আমাদের চুলের স্বাস্থ্য নির্ভর করে তাই অন্যদের চুলে যা প্রয়োজনীয় আপনার চুলে সেই জিনিসের প্রয়োজনীয়তা নাও থাকতে পারে।

চুলের স্বাস্থ্য নির্ভর করে আপনি কেমন ধরনের জীবন কাটান। আপনার জীবন জ্যোতি আরামের হয় তাহলে সপ্তাহে দুবার চুলে শ্যাম্পু করলেই আপনার চুল ভালো থাকবে। কিন্তু যদি আপনি প্রতিনিয়ত জিম করে তাহলে আপনার চুলে সপ্তাহে দু’বারের বেশি শ্যাম্পু করতে হবে। জিম করলে আপনার শরীরে প্রচুর ঘাম হয়। সেই ঘামের নোংরা চুলে বসে চুল অপরিষ্কার থাকে তাই জিম করলে সপ্তাহে দুইবারের বেশি শ্যাম্পু করুন।

এছাড়াও আপনার খাদ্যাভ্যাসের ধরনের ওপর নির্ভর করে আপনি সপ্তাহে কতবার শ্যাম্পু করবেন। বয়স বাড়ার সাথে সাথে ধীরে ধীরে চুল শুকনো হয়ে যায় তাই শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।

তেল নিয়ে কখনোই দুশ্চিন্তা করবেন না। চুল যদি তেলতেলে হয়ে যায় তাহলে শ্যাম্পু করার প্রয়োজন নেই কারণ চুলের গ্রন্থি থেকে প্রাকৃতিক ভাবে তেল নিঃসৃত হয়। আপনার জীবন যখন নোংরা হবে তখন প্রথমেই শ্যাম্পু দিয়ে ওই প্রাকৃতিক তেল ধুয়ে ফেলে তারপর অর্গানিক তেল ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা নেই।

এখনকার শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার প্রায়ই সালফেট থাকে। এই সালফেট জাতীয় পদার্থ থেকে আপনারা দূরে থাকুন। সালফেট যুক্ত শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেললে চুলের প্রাকৃতিক তেল নষ্ট হয়ে যায় এবং চুলের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়। স্নানের সময় পরিষ্কার জলে চুল ভালোভাবে ধুয়ে ফেললেও চুলের অনেক ধুলো ময়লা পরিষ্কার হয়ে যায়।