জানেন কি পৃথিবীতে এমন একটি দেশ রয়েছে যেখানে বেশিরভাগ মানুষই মাটির নিচে বসবাস করে

9
জানেন কি পৃথিবীতে এমন একটি দেশ রয়েছে যেখানে বেশিরভাগ মানুষই মাটির নিচে বসবাস করে

ভাবলে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে পৃথিবীতে এমন একটি দেশ রয়েছে যেখানে বেশিরভাগ মানুষই অর্থাৎ ৮০% মানুষ মাটির নিচে বসবাস করে। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার কুবার পেডি নামক একটি অঞ্চল। কুবার পেডি এটি হলো একটি খনি অঞ্চল। প্রচুর পরিমাণে খনি উৎপন্ন ও সংগ্রহ করা হয়। একথাও ঠিক এই অঞ্চলে প্রায় ৮০% মানুষ বসবাস করে।

ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায় এটি প্রধানত পাথরজনিত অঞ্চল ছিল। ১৯১১ সালে উহল হাচিসন নামক ব্যক্তি এই অঞ্চল থেকে ওপাল রত্ন খুঁজে পান। তখন এই অঞ্চলে বসবাস করত পোকামাকড় ,সাপ, পাখি, মানুষের কোনো চিহ্নই ছিলনা এখানে।

হাচিসন ওপাল রত্ন খুঁজে পাওয়ার পর থেকেই এই অঞ্চলে পারি দিতে শুরু করল রত্ন উদ্ধারকারীরা। রত্ন পাওয়ার আশায় তারা খোঁড়াখুঁড়ি শুরু করল কিন্তু এর ফলে তৈরি হল এক বিশাল আকারের গুহার। সেই গুহার ফলে তাপ আসার পথ প্রশস্ত হলো এবং সূর্যের তাপ থেকে বাঁচার জন্য মানুষ সেখানে বসবাস শুরু করল। এরপর থেকেই কুবার পেডি অঞ্চল খনিজ অঞ্চলে পরিণত হয় ।এখান থেকে প্রচুর পরিমাণে মূল্যবান পাথর খনি সংগ্রহ করা হয়। ১৯১৫ থেকেই মানুষ এখানে বসবাস করতে শুরু করে।

এখান থেকে ৮০০ কিলোমিটার দূরে অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত আ্যডিলেড নগরটি দেখা যায়। এককথা বলতে এই অঞ্চলটি মানুষের বসবাস করার জন্য একেবারেই উপযোগী ছিলনা ।কারণ এখানে গরমকালে তাপমাত্রা থাকে প্রায় ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং শীতকালে তাপমাত্রা হর জিরো ডিগ্রী সেলসিয়াস। তার সত্বেও মানুষ এই অঞ্চলের দিকে বসবাস করার উপযোগী করে তুলেছে। এখানে অন্যান্য শহরের মতই শপিং মল, গির্জা, হোটেল, অফিস সমস্তকিছু রয়েছে।

একথা ঠিক এখানে কোনো গাছপালা নেই তারসত্বেও মানবজাতি এই স্থানটিকে তাদের বসবাসের উপযোগী করে তুলেছে। কুফার পেডি এত সুন্দর অঞ্চল যে অনেক পর্যটকরা এখানে ঘুরতে আসে। ধীরে ধীরে এই জায়গায়টি একটি শিল্প নগরীর সাথে সাথে পর্যটন শিল্পনগরী হিসাবে পর্যবসিত হয়েছে।