জানেন কি নবজাতকের প্রথম ৬ মাস রাতে নিশ্ছিদ্র ঘুম খুবই গুরুত্বপূ্র্ণ! দেখে নিন

15
জানেন কি নবজাতকের প্রথম ৬ মাস রাতে নিশ্ছিদ্র ঘুম খুবই গুরুত্বপূ্র্ণ! দেখে নিন

রাতে যদি ঠিকঠাক ঘুম না হয় তাহলে সারাদিনই শরীর যেন কেমন ঝিম ঝিম করতে থাকে। রাতের ঘুমই শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যকে সুস্থ এবং সতেজ রাখে। শিশুদের ক্ষেত্রে ও সেই একই কথা প্রযোজ্য। গত বছর অক্টোবরে অক্সফোর্ড অ্যাকাডেমির ‘স্লিপ’ পত্রিকায় প্রকাশিত গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, জীবনের প্রথম ৬ মাস রাতে নিশ্ছিদ্র ঘুম খুবই গুরুত্বপূ্র্ণ৷ বার্মিংহ্যাম এবং ম্যাসাচুসেটস-এর দু’টি হাসপাতালের গবেষকদের দাবি, সদ্যোজাতরা যদি রাতে ভাল ঘুমোয় তাহলে তারা শৈশবে অতিরিক্ত মোটা হয় না৷

বার্মিংহ্যাম হাসপাতালের গবেষকরা বলেছেন, ‘‘শুধু রাতে কম ঘুমই নয়৷ সারা দিনও বেশি ক্ষণ জেগে থাকলে শৈশবের প্রথম ৬ মাসে ওবেসিটির ঝুঁকি থেকে যায়’’৷

সদ্যোজাতদের উপর এই গবেষণা করা হয় অ্যাঙ্গল অ্যাক্টিগ্রাফি ওয়াচ ব্যবহার করে৷ অ্যাঙ্গল অ্যাক্টিগ্রাফি ওয়াচ হল এমন একটি যন্ত্র, যার সাহায্যে সদ্যোজাতদের আচরণ বেশ কয়েক দিন ধরে পর্যবেক্ষণ করা যায়৷

World Health Organizationবা WHO-এর Growth Chart এর তালিকায় ৯৫ তম পার্সেন্টাইল-এর মধ্যে বা উপরে কোনও সদ্যোজাত পড়লে, তাকে ওভারওয়েট বলে চিহ্নিত করা হয়৷

গবেষকরা এও বলেছেন, একঘণ্টা বাড়তি ঘুমও শিশুদের ক্ষেত্রে ওভারওয়েট হওয়ার ঝুঁকি ২৬ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিতে পারে৷ তাদের মতে যে সব শিশু রাতে ঘুম থেকে খুব বেশি ওঠে না, তাদেরও বাড়তি ওজন হয় না৷ তবে বিজ্ঞানী ও গবেষকরা জানিয়েছেন, প্রয়োজনের তুলনায় বেশি খাওয়ালেও বাচ্চা কিন্তু ওভারওয়েট হতে পারে৷