তামিলনাড়ুর পামবানন দ্বীপের দক্ষিণ পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত ধনুষকোডি! জানুন এই জায়গার বিশেষত্ব

14
তামিলনাড়ুর পামবানন দ্বীপের দক্ষিণ পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত ধনুষকোডি! জানুন এই জায়গার বিশেষত্ব

গোটা ভারত জুড়ে রহস্যময় এবং আকর্ষণীয় জায়গায় ছড়িয়ে রয়েছে যেগুলোর মধ্যে বিশেষ একটি জায়গা হল তামিলনাড়ুর পূর্ব উপকূলে অবস্থিত রামেশ্বরম দ্বীপ, যেখানে অবস্থিত ধনুষকোডি। এই জায়গাটাকে ভারতের শেষ প্রান্ত বলেও গণ্য করা হয়।

যারা ঘুরতে ভালোবাসেন তাদের কাছে এই জায়গাটি বিশেষ পছন্দের হতে পারে। এবার আসুন জেনে নিই এই জায়গাটি সম্পর্কে বিস্তারিত। তামিলনাড়ুর পামবানন দ্বীপের দক্ষিণ পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত ধনুষকোডি। এই জায়গাটিতে পৌঁছানো কিছুটা হলেও কঠিন সবার পক্ষে কারণ এই শহরে যদি পৌঁছাতে হয় তাহলে পেরোতে হবে পামবান দ্বীপ।

ভারত এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে একমাত্র সীমান্ত যেটি পাল্ক প্রণালীতে অবস্থিত। জানা গেছে ১৯৬৪ সালে বিশাল ঘূর্ণিঝড় হয়েছিল এই শহরটিতে যার কারণে গোটা শহর বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিল। নিহত হয়েছিল এই ধরে প্রায় ১৮০০ জন এবং জানা গেছিল ১০০ জন যাত্রীবাহী একটি ট্রেন ডুবে গিয়েছিল যার পড়ে এই জায়গাটাকে সরকারের পক্ষ থেকে বসবাসের জন্য অনুপোযোগী বলেই গণ্য করা হয়েছে।

তবে বর্তমানে এখানে ৫০০ জন জেলে বসবাস করে জীবিকা নির্বাহের জন্য। তবে পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী বলা হয় ধনুষকোডি হলো সেই জায়গাটি যেখানে ভগবান রাম এবং তার সেনাবাহিনীর যাওয়ার জন্য সেতু করেছিল। যদিও এই সেতুটির বর্তমান নাম এখন অ্যাডামস ব্রিজ। ভারতের শেষ ভূমি হিসেবে গণ্য করা হয়েছে ধনুষকোডিকে। শহরটির পার্থিক পরিসর ৫০ গজ যার কারণে এটি বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম স্থান বলে বিবেচিত।