কলকাতার বাজারে চড়া দামেও মুহূর্তের মধ্যে স্টকের ৮০ শতাংশ ইলিশ শেষ হয়ে গেল

7
কলকাতার বাজারে চড়া দামেও মুহূর্তের মধ্যে স্টকের ৮০ শতাংশ ইলিশ শেষ হয়ে গেল

২০১২ সাল থেকে ইলিশ মাছ রপ্তানি নিষিদ্ধ ছিল। এবার ইলিশ ব্যবসায়ীদের ডাকে সাড়া বিয়ে বিশেষ অনুমতি দিল বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশ থেকে প্রায় ২০০ মাছ রপ্তানিকারক ভারতে মাছ রপ্তানির জন্য সরকারের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন। তার মধ্যে কেবল ৯ জনকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

ভারতে ইলিশ রফতানিতে বাংলাদেশ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার পর মঙ্গলবার থেকে কলকাতা ও হাওড়ার বাজারে আসছে পদ্মার ইলিশ। প্রথম দফায় ২০ টন ইলিশ ঢুকেছে। বাংলাদেশের শেখ হাসিনা সরকার পশ্চিমবঙ্গে মোট ১৪৫০ টন ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছে।

কলকাতা এবং হাওড়ার বিভিন্ন বাজারে দেখা গেল, পদ্মার ইলিশ কেনার জন্য রীতিমত হুড়োহুড়ি ক্রেতাদের মধ্যে। চড়া দাম দিয়ে মাছ কেনার সামর্থ্য যাঁদের নেই, তাঁরাও সীমান্ত পেরিয়ে আসা ইলিশ মাচকে একবার চোখের দেখা দেখে যাচ্ছেন। ১০ অক্টোবরের মধ্যে পুরো ১৪৫০ টন ইলিশ বাংলাদেশ থেকে এদেশে ঢুকবে। লেক মার্কেটের মত্‍স্য ব্যবসায়ী অমর দাস জানিয়েছেন, লেক মার্কেটে বাংলাদেশের ৬০০ কেজি ইলিশ এসেছে। ১.২ কেজি এবং ১.৩ কেজির ইলিশ বিক্রি হয়েছে ১৮০০ টাকা প্রতি কেজি দরে।

একটু বড় ১.৪ কেজি থেকে ১.৫ কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হয়েছে ২০০০ টাকা প্রতি কেজি দরে। দের কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ২৪০০ টাকা থেকে ২৫০০ টাকা। এত দাম উপেক্ষা করেও বহু মানুষ এ দিন ইলিশ কেনার জন্য বাজারে ভিড় জমিয়েছেন। বাজারের জয়েন্ট সেক্রেটারি বিজয় সাহু জানিয়েছেন, দাম চড়া থাকলেও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ইলিশের স্টকের ৮০ শতাংশ শেষ হয়ে যায়।