বিরোধিতা করলেও কেন্দ্র প্রদর্শিত প্রথম বিকল্প পথটিই বেছে নিচ্ছে তিনটি রাজ্য

10
বিরোধিতা করলেও কেন্দ্র প্রদর্শিত প্রথম বিকল্প পথটিই বেছে নিচ্ছে তিনটি রাজ্য

কেন্দ্রের কাছ থেকে জিএসটি সংক্রান্ত রাজ্যগুলির বকেয়া পাওনা প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকার আগেই জানিয়ে দিয়েছিল, করোনা মহামারীর কারণে এবছর রাজ্যগুলিকে জিএসটির বকেয়া টাকা দেওয়া সম্ভব নয়। তার বদলে কেন্দ্রের তরফ থেকে দুটি বিকল্প পথের পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। প্রথম বিকল্প হিসেবে, আরবিআই এর কাছ থেকে টাকা ধার করতে পারে রাজ্য, দ্বিতীয়টিতে জিএসটির ক্ষতিপূরণ ও করোনার মহামারীর জেরে টাকা ধার করতে পারে রাজ্য।

প্রথমদিকে কেন্দ্রের প্রদর্শিত বিকল্প পথের বিরোধিতা করেছে রাজ্য গুলি। পাশাপাশি অনেক রাজ্যের তরফ থেকে কেন্দ্রকেই রিজার্ভ ব্যাংক থেকে টাকা ধার করে রাজ্যের পাওনা টাকা মিটিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তবে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে অনড় কেন্দ্র। তাই বাধ্য হয়েই, কেরালা, মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, বিহার ও উত্তরাখণ্ডের মতো বেশ কিছু রাজ্য কেন্দ্র প্রদর্শিত প্রথম বিকল্প পথটিই বেছে নিচ্ছে।

এই বিকল্প অনুসারে, সুদের উপর ০.৫ শতাংশ হারে ছাড়ে রিজার্ভ ব্যাংক থেকে প্রায় ৯৭ হাজার কোটি টাকা ধার করতে পারবে রাজ্য। এখানে সুদ এবং আসল জিএসটির সেস থেকে মিটিয়ে দেবে কেন্দ্র। দ্বিতীয় বিকল্প অনুসারে, আরবিআই থেকে ২.৩৫ লক্ষ কোটি টাকা ধার নিতে পারে রাজ্য, তবে সেক্ষেত্রে কেন্দ্র শুধু আসলের টাকাই জিএসটির সেস থেকে মেটাবে। বাকি সুদের টাকা রাজ্যকে মেটাতে হবে।

মহামারীর জন্য রাজস্ব কম সংগ্রহ হওয়াতে, একে “অ্যাক্ট অফ গড” হিসেবেই চিহ্নিত করেছে কেন্দ্র। এদিকে রাজস্বের টাকা ছাড়া, সরকারি কর্মীদের মাইনে দিতে হিমশিম খাচ্ছে রাজ্যগুলি। বিজেপি বিরোধী রাজ্য যেমন কেরালা, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ু প্রথম থেকেই কেন্দ্রের পরামর্শের বিরোধীতা করে এসেছে। তবে পরিস্থিতি বিবেচনা করে উপায়ান্তর না দেখে কেরালা, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র সরকার ইতিমধ্যেই প্রথম বিকল্পটিই বেছে নেবেন বলে জানিয়েছেন।