হতাশায় বিশ্ব বাসী, কোনোভাবেই প্লাজমা থেরাপি করোনা চিকিৎসার উপযোগী নয়, জানাল আই সি এম আর

7
হতাশায় বিশ্ব বাসী, কোনোভাবেই প্লাজমা থেরাপি করোনা চিকিৎসার উপযোগী নয়, জানাল আই সি এম আর

এবার আই সি এম আর এক বিশাল বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসলেন। কারণ অনেকেই এই প্রযুক্তির আশায় বসেছিলেন। কারণ ভ্যাক্সিন আসার আগ পর্যন্ত এই প্রযুক্তি খুবই কার্যকর, কিন্তু এবার আই সি এম আরের সমীক্ষায় ধরা পরল আসল ঘটনা। তারা জানিয়ে দিল কোনোভাবেই এই প্লাজমা থেরাপি করোনা চিকিৎসার জন্য উপযোগী নয়। কোনোভাবেই এই প্লাজমা করোনা সংক্রমণ আটকাতে সক্ষম নয়। এমনকি কোনো মরণাপন্ন রোগীকেও কোনোভাবেই সাহায্য করে না এই প্লাজমা। কিছুদিন আগেই আই সি এম আর একটি সমীক্ষা করেছিল যা কিনা একেবারে অসফল হয়েছে। আর সেখান থেকেই তারা জানতে পেরেছে এই প্লাজমা করোনা সংক্রমণ আটকাতে ও রোগীকে ভালো করতে কোনোভাবেই সক্ষম নয়।

আইসি এম আর ২২ এপ্রিল থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত ৩৯ টি হাসপাতালে ১২১০ জন করোনা রোগীর ওপরে এই সমীক্ষা চালানো হয় , আর সেই সমীক্ষাতেই স্পষ্ট হয় যে এই করোনা সংক্রমণ আটকাতে ও মৃত্যুর হার কমাতে কোনোভাবেই কনভালসেন্ট প্লাজমা থেরাপি কাজ করে না। একটা সময় প্লাজমা থেরাপি সব ডাক্তার ট্রাই করছিল। সেই কারণে করোনা রোগীর যারা সুস্থ হয়েছিল তাদের প্লাজমা ব্যবহার করে এই চিকিৎসা চালানোর চেষ্টা করা হয়েছিল, কিন্তু এবার সেটা নিয়ে কোনো ইতিবাচক খবর শোনাতে পারল না আই সি এম আর।

এখন দেখা যাচ্ছে সব জায়গাতেই দুঃসংবাদ। কারণ অনেকেই ভেবেছিল এই ভ্যাক্সিন আসার আগে প্লাজমা থেরাপিতেই মানুষ অনেকটাই সেড়ে উঠবে‌। কিন্তু এই নিয়ে নেতিবাচক খবর শোনালো আই সি এম আর। এদিকে তার মধ্যেই আবার অক্সফোর্ডের ভ্যক্সিন নিয়েও শোনা গেল দুঃসংবাদ। সেখানে চূড়ান্ত ট্রায়াল করতে গিয়ে এক স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হয়ে পরে, আর তারপরেই শেষ ট্রায়াল বন্ধ করে দেওয়া হয়। যা কিনা বিশ্ব বাসীকে আরও চিন্তার মধ্যে ফেলল।