দিল্লির সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে যে দাঙ্গা হাঙ্গামা তাতে সমর্থনকারীদের নাম নেই দিল্লি পুলিশের চার্জশিটে

5
দিল্লির সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে যে দাঙ্গা হাঙ্গামা তাতে সমর্থনকারীদের নাম নেই দিল্লি পুলিশের চার্জশিটে

এবার দিল্লির সেই সিএ এ ও এন আর সি নিয়ে যে দাঙ্গা হাঙ্গামা হয়েছিল উত্তর পূর্ব দিল্লিতে। সেখানে বিরোধী ও সমর্থনদের মধ্যে যে দাঙ্গা হাঙ্গামা হয়েছিল। সেই চার্জশিটে দেখা যাচ্ছে কেবলমাত্র নাম রয়েছে সিএ এ বিরোধীদের, মাত্র ১৫জন। এই যে দাঙ্গা হাঙ্গামা হয়েছিল ফেব্রুয়ারি মাসের দিকে সেখানে ৫৩ জনের মতো প্রাণ হারিয়েছিল ও আহত হয়েছিল ২০০ জনের মতো। ঘড় ছাড়া হয়েছিল ১০০ জন মানুষ। এই হিংসার লড়াই যে আগের থেকেই সুপরিকল্পিত ছিল সেটা দাবি করে আসছে দিল্লি পুলিশ।

এবার তার সাথেই তারা দাবি করল আদালতের কাছে যে, রাস্তা আটকানো কিভাবে গণতান্ত্রিক প্রতিবাদ হতে পারে? সাথে আরও জানায় তারা, আসলে যারা দিল্লির সেই হিংসায় অংশগ্রহণ করেছিল তাদের সাথে সড়াসড়ি যোগাযোগ আছে মূল ষড়যন্ত্রকারীদের সাথে। কারণ হোয়াটস আপ গ্রুপ তারা ব্যবহার করত যেখানে সিলাম পুর ও জাফরাবাদে হিংসা ছড়ানোর কথা উল্লেখ আছে।

এবার যারা হিংসার সাথে যুক্ত ছিল তাদের নামে ১৭,৫০০ পাতার চার্জ শিট তৈরী করা হয়েছে, ও সেটা পেশ করা হয়েছে আদালতে। এদিকে তাদের এই বেআইনি কার্যকলাপের বিরুদ্ধে কার্যক্রম প্রতিরোধ আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এই মামলায় যুক্ত আছে অনেক ছাত্রদের নাম। যারা সিএএ বিরোধী। সেখানে অনেক বামপন্থী ছাত্রেরা আছে।

তবে বিজেপির কপিল মিশ্র গ্রেফতার হয় নি, সেটাই অবাক করছে সবাইকে। এই কপিল মিশ্রকে উসকানিমূলক বক্তব্য দিতে শোনা গিয়েছিল কিন্তু তাও তিনি কেনো গ্রেফতার হলেন না? তার পাশে ছিল একজন পুলিশকর্মীও। অনেকেই দাবি করছেন এই কপিল মিশ্রের উসকানিমূলক মন্তব্যের জেরেই হিংসার সূত্রপাত। কিন্তু তাও কেনো গ্রেফতার হলেন না তিনি??