পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে বাস্তু মতে সাজিয়ে নিন রান্নাঘর

5
পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে বাস্তু মতে সাজিয়ে নিন রান্নাঘর

মূলত বাস্তু সাধারণত দিক বিজ্ঞান হিসাবে বিবেচনা করা হয়। আর ভাগ্যের পরিবর্তন হয় বাস্তুর ঠিক ও ভুলের ওপর নির্ভর করে। বাস্তু মতে ঘরসজ্জা করলে গৃহের দোষ কেটে যায়, সংসারে অশান্তি হয় না আর বজায় থাকে সকলের সুস্বাস্থ্য। আর এই কথা সবথেকে বেশি প্রযোজ্য রান্নাঘরের ক্ষেত্রে। কথাতেই আছে, পরিবারের সকলের যদি সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে চাও তাহলে বাস্তু মতে রান্নাঘর সাজাতে হবে।

অর্থাৎ রান্নাঘরের কোথায় গ্যাস থাকবে, কোথায় করতে হবে ক্যাবিনেট, কোথায়ই বা রাখতে হবে সবজির বাক্স এবং ফ্রিজ, সেদিকে ভালোভাবে খেয়াল রাখা দরকার। বাস্তু ঠিক রাখার জন্য শুধুই কি রান্নাঘর ঠিক রাখতে হবে তা কিন্তু নয়, এমন অনেক জিনিস আছে যা করলে বাড়িতে বাস্তুদোষ তৈরি হয়। তবে রান্নাঘরের দিকে বিশেষ নজর রাখতেই হবে। বাস্তু মতে রান্নাঘর বাড়ির একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। তাই এই জায়গার ছোট ছোট ভুলের জন্য সংসারে ক্ষতি হয়। তাহলে দেরী না করে দেখে নেওয়া যাক, রান্নাঘরের কোন কোন জিনিস বাস্তু দোষ তৈরি করতে পারে ।

কাঁচের কাপের কোণা ভেঙে গেলে কিংবা কোনও পাত্র ফেটে গেলে তা ফেলে না দিয়ে অনেকেই তা রান্নাঘরে মজুত রাখেন। এই কাজ কখনোই করা ঠিক না। কারণ এ ধরনের পাত্রে খাবার খেলে ঘরে দারিদ্র্যতা বাড়ে। সংসারে আর্থিক অভাব অনটন ঘিরে ধরে। তাই এইসব ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে ঘরের উত্তরদিকে একটি আটকোণা বা অষ্টভুজাকার আয়না লাগাতে হবে। ঘরে এমন আয়না রাখলে অনেক শুভ ফল পাওয়া যায়।

রান্নাঘরে কাঠের আসবার সঠিক দিশায় রাখা প্রয়োজন। নাহলে সেই কাঠের বাসন থেকেও তৈরি হতে পারে বাস্তু দোষ। ফলে এর খারাপ প্রভাব পড়ে পরিবারে যিনি উপার্জন করেন তার ওপর।

রাতে এঁটো প্লেটে জমিয়ে রাখা একদমই উচিত নয়। এর থেকে ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। যা শরীর খারাপের কারণ হতে পারে। তাছাড়াও, এর প্রভাবে বাড়িতে নেগেটিভিটি ছড়ায় যা সংসারের জন্য অকল্যাণ ডেকে আনে।

এমন অনেকেই আছেন যারা রান্নাঘরে সবজির খোসা, আবর্জনা, নোংরা বাসন ফেলে রাখেন। এটিও নেগেটিভিটি বহন করে। বাস্তু মতে ঈশ্বর কেবল বিশুদ্ধ ও পবিত্র স্থানে বিরাজ করেন। তাই এমন স্তূপাকার ভাবে জিনিস ফেলে রাখা সংসারের জন্য ক্ষতিকর। আর প্রকৃতির বেশিরভাগ উপাদান যেমন- জল, আগুন, বাতাস এই সমস্তই রান্নাঘরে পাওয়া যায়। তাই এই স্থান নোংরা রাখা উচিত নয়।

আবার অনেকেরই রান্নাঘরের কল দিয়ে টপ টপ করে জল পড়ে। বাস্তু মতে, এটাও খারাপ। এতে, অগ্নিদেবতা রুষ্ট হন। জলের সঙ্গে আগুনের বিবাদ তৈরি হয়। এর জন্য খারাপ প্রভাব পড়ে শরীরের ওপর। বাড়ির কেউ অসুস্থ হতে পারে এই ভুলের জন্য। তাই রান্না ঘরের কল খারাপ হলে, তা তৎক্ষণাত সারিয়ে ফেলাই শ্রেয়।