আজ রাতেই ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী অঞ্চলে আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় তাওকাতে

20
আজ রাতেই ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী অঞ্চলে আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় তাওকাতে

আগের তুলনায় আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠেছে ঘূর্ণিঝড় তাওকাতে। ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী অঞ্চলে ক্রমশ শক্তি বৃদ্ধি করছে সে। বর্তমানে এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান আরব সাগরের উপর। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, রাত ৮ টা থেকে ১১ টার মধ্যে ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার বেগে গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়তে চলেছে এই ঘূর্ণিঝড়। এরপর মঙ্গলবার সকালে সেটি পোরবন্দর ও মহুবার মধ্যে প্রবেশ করবে।

আবহাওয়া দপ্তরের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, প্রতি ঘণ্টায় ২১০ কিলোমিটার বেগে আরব সাগরের উপর দিয়ে বয়ে যাবে এই ঘূর্ণিঝড়। আরব সাগরের উপর ঘূর্ণি ঝড়ের তান্ডব চলবে ছয় ঘন্টা ধরে। এরপর সেটি উপকূলবর্তী অঞ্চলে আছড়ে পড়বে। আগামী ১২ ঘন্টার মধ্যে মহারাষ্ট্র উপকূলে প্রবল জলোচ্ছাস আছড়ে পড়বে বলে জানানো হয়েছে।

এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় তাওকাতে মুম্বইয়ের পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম প্রান্ত থেকে প্রায় ১৪২ কিলোমিটার এবং দিউ থেকে ১৮২কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণ পূর্বে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে পোরবন্দর, আমরেলি, জুনাগড়, গির সোমনাথ, ভবনগর ও বোতাড় এলাকায় প্রবল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। দেবভূমি দ্বারকা, কচ্ছ, জামনগর, রাজকোট ও মোরবি, ভালসাদ, সুরাট, ভাদোদরা, বারুচ, নবসারি, আনন্দ ও আহমেদাবাদ জেলাতেও প্রবল ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে আসন্ন বিপর্যয় এর বিরুদ্ধে মোকাবিলা করার জন্য তৎপর রয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর। সৌরাষ্ট্র ও কচ্ছ উপকূল থেকে ইতিমধ্যেই ১.৫ লক্ষ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের ৪৪টি টিম একজোট হয়ে কাজ করছে।