আবহাওয়া দপ্তরের আশঙ্কা সত্যি প্রমাণিত করে শ্রীলঙ্কায় আছড়ে পড়লো ঘূর্ণিঝড় “বুরেভি”

15
আবহাওয়া দপ্তরের আশঙ্কা সত্যি প্রমাণিত করে শ্রীলঙ্কায় আছড়ে পড়লো ঘূর্ণিঝড়

আবহাওয়া দপ্তরের আশঙ্কা সত্যি প্রমাণিত করে বৃহস্পতিবার বেলার দিকে শ্রীলঙ্কায় আছড়ে পড়লো বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় “বুরেভি”। সূত্রের খবর, এদিন বেলা এগারোটা নাগাদ শ্রীলংকার উপকূলে ঘূর্ণিঝড়ের তান্ডব শুরু হয়। শ্রীলংকার পর এবার “বুরেভি”র তাণ্ডবের সম্মুখীন হতে চলেছে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলি। বিশেষত তামিলনাড়ু এবং কেরালার উপকূলে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়তে পারে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অপর একটি নিম্নচাপ “নিভার” তামিলনাড়ুর উপকূলে আছড়ে পড়ে। ঘূর্ণিঝড় “নিভার” এর তাণ্ডবে তামিলনাড়ু উপকূল রীতিমতো বিধ্বস্ত হয়ে যায়। তবে এদিনের ঘূর্ণিঝড় অর্থাৎ “বুরেভি” নিভারের মত অতটা শক্তিশালী এবং ভয়ঙ্কর নয় বলেই জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, শ্রীলংকার পর বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে অথবা শুক্রবার সকালে দক্ষিণ ভারতে “বুরেভি” প্রভাব পড়বে।

বর্তমানে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলার আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রাখছে তামিলনাড়ু এবং কেরালা সরকার। উভয় রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর সমস্ত রকম পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে প্রস্তুত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও তামিলনাড়ু এবং কেরালা সরকারকে পাশে থাকার আশ্বাস বাণী প্রদান করেছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ু ও কেরালার সরকারের সঙ্গে কথা বলেছেন।

শেষ পাওয়া খবরে অনুসারে, ঘূর্ণিঝড় বুরেভি এই মুহূর্তে তামিলনাড়ু উপকূল থেকে অন্তত ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। তবে বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে অথবা শুক্রবার সকালে এই ঘূর্ণিঝড় ঘন্টায় ৮০-৯০ কিলোমিটার বেগে তামিলনাড়ুর উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে মৌসম বিভাগ। তামিলনাড়ুর পর বুরেভির পরবর্তী টার্গেট হবে কেরালা।