মারাদোনা তার বিশাল সম্পত্তির উইল না করায় সন্তানদের মধ্যে সৃষ্টি বিতর্কের

9
মারাদোনা তার বিশাল সম্পত্তির উইল না করায় সন্তানদের মধ্যে সৃষ্টি বিতর্কের

ফুটবল জগতের কিংবদন্তি খেলোয়াড় ছিলেন দিয়েগো মারাদোনা। ফুটবল প্রেমীদের অনুপ্রেরণা ছিলেন তিনি। ফুটবল জগতের “হ্যান্ড অফ গড” ছিলেন তিনি। এহেন মারাদোনার ব্যক্তিগত জীবনও কিন্তু বেশ রঙিন ছিল। তাকে নিয়ে জল্পনা, সমালোচনার অন্ত ছিল না। আর্জেন্টাইন সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, দিয়েগো মারাদোনা আট সন্তানের জনক ছিলেন।

তার স্ত্রী এবং প্রেমিকার সংখ্যাও কিছু কম ছিল না। প্রথম স্ত্রী ক্লদিয়ার থেকে তার দুই কন্যা সন্তান জন্ম নেন, জিয়ান্নিনা এবং ডালমা। এরপর নাপোলিতে খেলার সময় ক্রিশ্চিয়ানা সিনোগ্রার সঙ্গে মারাদোনা প্রেম সম্পর্কে জড়ান। জন্ম হয় দিয়েগো জুনিয়রের। পরবর্তীকালে তিনি দিয়েগোকে নিজের সন্তান হিসেবে স্বীকৃতি দেন। ২০০৮ সালে তার অপর এক সন্তানের কথা প্রকাশ্যে আসে।

প্রাক্তন প্রেমিকা ভ্যালেরিয়া সাবালাইনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা কারণে মারাদোনা জানার জন্ম হয়। ২০১৩ সালে তার পঞ্চম সন্তান দিয়েগো ওজেদার জন্ম হয়। এখানেই শেষ নয় কিন্তু। এই কিংবদন্তি খেলোয়াড়ের কিউবাতেও তিনটি সন্তান রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এত বিশাল বড় পরিবার হওয়া সত্ত্বেও শেষ জীবনটা একাকিত্বেই কাটাতে হয়েছে তাকে। তবে তার মৃত্যুর পর পরিস্থিতির মোড় অন্যদিকে ঘুরে গিয়েছে।

মৃত্যুর আগে দিয়েগো তার বিশাল সম্পত্তির কোনো উইল করে যাননি। এখানেই সমস্যার সূত্রপাত। আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ৬০ বৎসরের জীবনকালে প্রায় ৭০০ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তির মালিক হয়েছিলেন মারাদোনা। এমতাবস্থায় তার আচমকা মৃত্যুতে সম্পত্তির মালিকানা নিয়ে সন্তানদের মধ্যে বেশ বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। এত বিপুল সম্পত্তি কিভাবে, কাদের মধ্যে বন্টিত হবে সেই নিয়েই জোর তরজা চলছে মারাদোনার পরিবারে। ফলত, মৃত্যুর পরেও খবরের কাগজের পাতায় মারাদোনার ব্যক্তিগত জীবনের প্রসঙ্গ উঠে আসছে।