চিকিৎসা না পাওয়া নাগরিক সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারস্থ হলে দমন করা যাবে নাঃ সুপ্রিমকোর্ট

23
চিকিৎসা না পাওয়া নাগরিক সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারস্থ হলে দমন করা যাবে নাঃ সুপ্রিমকোর্ট

করোনা জর্জরিত ভারতবর্ষ। চারিদিকে শুধু মৃত্যুর মিছিল। অক্সিজেনের জন্য হাহাকার, স্বজন হারানোর যন্ত্রণা, চিকিৎসা পরিসেবা পাওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে আকুতিই শুধু শোনা যাচ্ছে চারিদিকে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারত বর্ষ সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এমন এক কঠিনতম মুহূর্তে দেশের নাগরিকেরা যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় চিকিৎসা পরিসেবা পাওয়া নিয়ে নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাহলে তাদের প্রতি কোনরকম দমনমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবে না সরকার!

সম্প্রতি একটি মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে এমনই হুঁশিয়ারি জারি করা হয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার কিংবা বেড না পেয়ে যদি কোনো নাগরিক সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারস্থ হন তাহলে তাকে কোনরূপ হেনস্থা করা যাবে না। তাই বিরুদ্ধে দমন-পীড়ন মূলক কোনো আচরণ আদালত অবমাননার অভিযোগ হিসেবে গৃহীত হবে। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা এদিন এমনটা জানিয়ে দিয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। মামলার শুনানির সময় তিনি মন্তব্য করেন, মানুষ এখন গভীর সঙ্কটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। দেশের কোনো নাগরিক যদি এই কঠিন মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিযোগ জানান তাহলে তাকে কোনোভাবেই দমন করা যাবে না। যদি কোথাও এমনটা ঘটে থাকে তাহলে আদালত অবমাননা হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হবে।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আরো যোগ করেন, বর্তমানে দেশ এমনই এক কঠিনতম মুহূর্তের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে যেখানে সাধারণ মানুষ থেকে আরম্ভ করে চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীরাও চিকিৎসার পরিসেবা পাচ্ছেন না। নেট মাধ্যমে মানুষ কোন অভিযোগ জানালে তাই প্রথমেই তা মিথ্যে বলে ধরে নেওয়ার কোনো কারণ নেই। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট দেশের মন্দির, মসজিদসহ ধর্মীয় স্থান এবং হোটেল-রেস্তোরাঁ গুলিকে করোনা রোগের চিকিৎসার কাজে ব্যবহার করার নির্দেশ দিয়েছে।