বেজিংয়ের বাণিজ্য মেলায় ভ্যাক্সিনের খোলাখুলি প্রদর্শন করছে চীন

9
বেজিংয়ের বাণিজ্য মেলায় ভ্যাক্সিনের খোলাখুলি প্রদর্শন করছে চীন

এবার বাণিজ্যমেলায় দেখা যাচ্ছে চিনের টিকা। আজ্ঞে হ্যাঁ ইতিমধ্যে চিন তৈরী করে ফেলেছে করোনা ভ্যাক্সিনের টিকা। চিনের দুটি প্রথম সারির ভ্যাক্সিন নির্মাতা সিনোফার্ম ও সিনোভ্যাক, যারা ইতিমধ্যে ভ্যাক্সিনের খোলাখুলি প্রদর্শন করছে বেজিংয়ের বাণিজ্য মেলায়। ৫ই সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে এই বাণিজ্যমেলা আর সেখানেই চিন টিকার ডায়ালের প্রদর্শনী করছে, সাধারণ মানুষকে দেখাচ্ছে।

চিনের টিকা এখনও বাজারে আসে নি, তবে চিনের টিকা সংস্হা সেনোভ্যাক জানিয়েছেন আগামী বছরের শেষেই এই টিকা বাজারে নিয়ে আসার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এই প্রদর্শনীতে মানুষের আত্মবিশ্বাস বাড়বে। তবে কতটা দাম থাকবে করোনা টিকার সেটা বোঝা যাচ্ছে না। কিন্তু ৩০ কোটি ডোজ বাজারে নিয়ে আসার কথা জানিয়েছে টিকা সংস্হা।

কিছুদিন আগেই চিনের সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছিল এই করোনারি টিকা রাশিয়ার পরেই চিন নিয়ে আসতে চলেছে। ইতিমধ্যে চিন সরকার ক্যানসিনো বায়োফার্মাসিউটিক্যালকে স্বত্ত্ব দিয়েছে। আসলে চিনের এই ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থার ভ্যাক্সিনের তৃতীয় ট্রায়াল শেষ, আর সেটা নিয়েই চিন আশাবাদী। তাই এই সিনোভ্যাকের টিকাই ব্যবহার যোগ্য বলে মনে করছে চিন সরকার।

চিন সরকার জানিয়েছে এই ভ্যাক্সিন সবার প্রথমে হাই রিস্ক মানুষদের ওপরেই প্রথম প্রয়োগ করা হবে। বিভিন্ন স্বাস্থ্য কর্মী, ডাক্তার, নার্স, থেকে শুরু করে সবাইকে এই টিকা আগে দেওয়া হবে। তবে কি ডোজ হিসেবে দেওয়া হবে সেটা এখনও স্পষ্ট নয়। এই ভ্যাকসিনের নাম দেওয়া হয়েছে করোনাভ্যাক। চিনের ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি জানিয়েছে এই সংস্হার দুটি ট্রায়াল খুবই সাফল্যমণ্ডিত হয়েছে। তাই ইতিবাচক ফল দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে। সাথে দেখা যাচ্ছে এই ভ্যাক্সিন এগিয়ে থাকলেও সৌদী আরবের ক্যানসিনো বায়োফার্মার ভ্যাক্সিনও অনেকটা এগিয়ে। কারণ তাদের এখন তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে ।