কুড়ি বছরের নিচে শিশু এবং তরুণদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হবার প্রবণতা কমঃ হু এর সমীক্ষা

4
কুড়ি বছরের নিচে শিশু এবং তরুণদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হবার প্রবণতা কমঃ হু এর সমীক্ষা

বিশ্বজুড়ে দিন প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। প্রতিদিন নতুন আক্রান্তের সংখ্যা তার আগের দিনের রেকর্ড ভেঙে দিচ্ছে। সম্প্রতি করোনা নিয়ে গবেষণা চালানো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একদল গবেষক দাবি করলেন, কুড়ি বছর থেকে কম বয়সীদের করোনা আক্রান্ত হবার প্রবণতা অন্যান্যদের তুলনায় অনেক কম। সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে, যাদের বয়স কুড়ি বছরের নিচে, সেই সকল কম বয়সীদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার হার রয়েছে মাত্র ১০ শতাংশ।

শুধু তাই নয়, কুড়ি বছরের কম বয়সীদের মৃত্যুহারও অন্যান্যদের তুলনায় অনেক কম। শতাংশের বিচারে মাত্র ০.২ শতাংশ কিশোর বা কিশোরী করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। তবে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে শিশু এবং যুবকদের মধ্যে করোনা রোগের প্রবণতা এবং মৃত্যুর ঝুঁকি সম্বন্ধে জানার জন্য এখনো গবেষণা চালিয়ে যেতে হবে। তবে শিশু এবং তরুণদের মৃত্যুহার বয়স্কদের তুলনায় কম বলেই জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

শিশু এবং তরুণদের মধ্যে করোনার দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি, শিশুদের ক্ষেত্রে করোনা মহামারীর প্রভাব অন্যভাবেও দেখা দিচ্ছে। মহামারীর আবহে লকডাউনের জেরে অন্যান্য রোগের প্রতিষেধক বা টিকা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না শিশুদের। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, এর ফলে ভবিষ্যতে ভয়ঙ্কর রোগের কবলে পড়তে পারে শিশুরা।

অনেকেই স্কুলে যেতে পারছে না। দীর্ঘদিন বাড়িতে থাকার ফলে শিশুমনের এবং মস্তিষ্কের সঠিক বিকাশ হচ্ছে না বলে দাবি করছেন শিশু বিশেষজ্ঞরা। ইতিমধ্যেই বিশ্বের বহু দেশে স্কুল গুলি ধীরে ধীরে খোলা হচ্ছে। করোনা মহামারীর হাত থেকে শিশুদের বাঁচাতে পরিবার এবং সরকারকেই দায়িত্ব নিতে হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। পাশাপাশি যে সমস্ত দেশে এখনো পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি চালু করা সম্ভব হয়নি, সেখানে ডিসটেন্স লার্নিং এর মাধ্যমে পড়ুয়াদের শিক্ষা প্রদানের পরামর্শ দিচ্ছে হু।