হিন্দির প্রতি শ্রদ্ধা বাড়াতে হিন্দি সেলকে পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি

4
হিন্দির প্রতি শ্রদ্ধা বাড়াতে হিন্দি সেলকে পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি

সম্প্রতি ২০২০ শিক্ষানীতি সমস্ত রাজ্যের ওপরেই জোড় করে চাপানো হচ্ছে, আর সেই নিয়েই বিরোধী দলের ক্ষোভ। বিশেষ করে সেই শিক্ষানীতিতে হিন্দি ভাষার জোড় বাড়ানো হয়েছে বলেও জানা গেছে। কারণ বিভিন্ন রাজ্যে হিন্দি ভাষার একটা প্রভাব তৈরী করার সৃষ্টি করছে। তবে এই নিয়ে বাংলা সহ বিভিন্ন রাজ্যের রাজনৈতিক দল ক্ষোভে ফেটে পরছে। এদিকে বাংলাতেও অনেকটাই প্রতিবাদ হলেও, এখানে রাজনৈতিক চাল চালছে মমতা ব্যানার্জি।

কারণ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, আগামী ২১ এর বিধানসভা ভোটে অবাঙালী ভোট অক্ষুন্ন রাখতেই এই পদক্ষেপ। মমতা ব্যানার্জি এবার হিন্দি সেলকে পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নিল। আর আজ সোমবার এই বিষয় নিয়ে বৈঠক করলেন মমতা ব্যানার্জি, আর সেখানেই তিনি দলিত সাহিত্য একাডেমী তৈরি করার কথা জানালো।

এই হিন্দি সেলের দায়িত্বে থাকবে দীনেশ ত্রিবেদী। তিনি লোকসভার প্রাক্তন সদস্য। এখানেই শেষ না কারণ তিনি আরও বাকি দায়িত্ব প্রাপ্ত সদস্যদের নাম ঘোষণা করেছে। ২০১১ সালে এই হিন্দি সহ আরও বিভিন্ন ভাষার সেল তৈরী করেছে মমতা ব্যানার্জি। এই হিন্দি ভাষার মর্যাদা ও মান অনেকটাই বৃদ্ধি করেছে, যার ফলে রাজনৈতিক উন্নতি হয়েছে। সব ভাষার কথা মাথায় রেখেই এই কাজ করেছেন, তবে এবার হিন্দি ভাষার একটি বড় পদক্ষেপ নিল ব্লক, জেলা, রাজ্য স্তরে সরকার।

আজ এই নিয়েই মমতা ব্যানার্জি একটি টুইট করেছেন, আর সেখানেই বলেছেন, হিন্দির প্রতি শ্রদ্ধা বাড়াতে, তার মান, মর্যাদা বাড়াতে ও অন্যান্য ভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল বলে অ্যাখ্যা করেছেন তিনি। এখানেই শেষ না, কারণ বাংলাকে ধ্রুপদি ভাষা হিসেবের দাবিতে বাংলার ঐতিহ্য ও মানের কথা বিবেচনা করে নতুন জাতীয় শিক্ষানীতিতে বাংলা ভাষার গুরুত্ব ও মর্যাদা দেওয়া হোক।